10:20am  Saturday, 30 May 2020 || 
   
শিরোনাম



বাল্যবিবাহ ও যৌন ব্যবসার অভিযোগে এফআইআর করায় মেয়েকে অ্যাসিড মারল বাবা
১০ মে ২০১৭, ২৭ বৈশাখ ১৪২৪, ১৩ শাবান ১৪৩৮



আজ বুধবার ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়ান টাইমসের প্রতিবেদনে জানানো হয়, গত ৩০ এপ্রিল রাতে মথুরায় ঘুমন্ত খুশবুর গায়ে অ্যাসিড ছোড়েন মানিক চন্দ্র। খুশবুর মুখ, কাঁধ ও দুই হাত ঝলসে গেছে। এ ঘটনায় মানিককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

প্রতিবেদনে জানানো হয়, রাতে খুশবু (২০) তাঁর স্বামী বিনোদ কুমার (২৬) ও মেয়ে তৃষাকে সঙ্গে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। এ সময় বাবা মানিক (৪০) অ্যাসিড ছুড়ে মারেন। খুশবু গুরুতর দগ্ধ হন। তাঁর শরীরের ৬ শতাংশ পুড়ে গেছে। আর স্বামী বিনোদ ও মেয়ে তৃষার শরীর সামান্য ঝলসে গেছে।

মানিক চন্দ্র একজন নারী পাচারকারী। নানা ছলে অল্প বয়সী মেয়ে বিয়ে করে বিক্রি করাই তাঁর পেশা। বাবার অপকর্ম মোটেও পছন্দ নয় মেয়ে খুশবু দেবীর। জোরেশোরে প্রতিবাদ জানান তিনি—না, এসব চলবে না। এতে খুব খেপে গেলেন মানিক। ঝাল ঝাড়তে অ্যাসিড ছুড়লেন মেয়ের গায়ে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশ রাজ্যের মথুরায়।

খুশবু বলেন, ‘বাবার সব অপকর্ম আমি জানতাম, এ কারণেই তিনি অ্যাসিড ছুড়েছেন। অনেক মেয়েকে তিনি যৌনপল্লিতে বিক্রি করেছেন। এ ঘটনা বেড়েই চলেছে। বহু বছর ধরে তিনি অল্প দামে মেয়েদের কিনে চড়া দামে বিক্রি করেন। তাঁর ধারণা ছিল, বিষয়গুলো আমি গোপন রাখব। পরে তিনি ভেবেছিলেন, আমাকে মেরে ফেললেই তিনি নিশ্চিন্তে থাকতে পারবেন। তিনি খুব খারাপ মানুষ।’

খুশবু বলেন, ‘বাবা ছোট মেয়েদের ফুঁসলে বিয়ে করতেন। পরে তাঁদের প্রায় ৬০ হাজার রুপির বিনিময়ে আলিগড়, আগ্রা ও দিল্লির যৌনপল্লিতে বিক্রি করে দিতেন।’

প্রতিবেদনে বলা হয়, এর আগে মেয়ে খুশবুকে কয়েকবার বিক্রি করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন মানিক। একবার ১২ বছর বয়সে খুশবুকে এক জায়গায় রেখে আসেন বাবা। খুশবু জানতে পারেন, সেখানে মেয়েদের ধর্ষণ করা হয়। পরে কোনো রকমে সেখান থেকে বাড়ি ফিরেছিলেন তিনি।

খুশবু বলেন, ‘তাঁর মায়ের নাম সারিতা দেবী। বাবা তাঁকে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করতেন। তাঁর আঘাতে মা শ্রবণশক্তি হারিয়ে ফেলেছিলেন। পরে তাঁকে ছেড়ে চলে যান মা। তিনি বিষয়টি বহুবার পুলিশকে জানাতে চেয়েছিলেন। কিন্তু বাবা পুলিশকে ঘুষ দিয়ে বেরিয়ে এসে আবারও নির্যাতন করবেন, এই ভয়ে তা জানাননি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, খুশবুরা পাঁচ ভাইবোন। চলতি বছরের জানুয়ারিতে মানিক তাঁর ১৬ বছর বয়সী ছোট মেয়ে অঞ্জলিকে ৫০ বছর বয়সী এক বৃদ্ধের সঙ্গে বিয়ের ছল করে বিক্রি করে দিতে চেয়েছিলেন। পরে খুশবুর মা বিষয়টি গ্রামবাসীকে জানান। গ্রামবাসী তাঁকে পুলিশ দেয়। কিন্তু দুদিন পরেই তিনি থানা থেকে বেরিয়ে আসেন। পরে ৬ ফেব্রুয়ারি মানিক একই চেষ্টা করে সফল হন। আগ্রার ৩০ বছর বয়সী এক যুবকের সঙ্গে অর্থের বিনিময়ে অঞ্জলির বিয়ে দেন তিনি।

খুশবু বলেন, ‘এ ঘটনার পর আমি সাসনি পুলিশের কাছে বাল্যবিবাহ ও যৌন ব্যবসার অভিযোগে এফআইআর করি। কিন্তু পুলিশ বাবাকে গ্রেপ্তার করেনি। পরে বাবা আমাকে অভিযোগ তুলে নিতে চাপ দেন। তাঁর কথা না মানায় বাড়িতে এসে আমার ওপর অ্যাসিড ছুড়ে মারেন বাবা। অ্যাসিড চোখে লাগায় আমি এখন কিছুই দেখতে পারছি না।’ এ ঘটনায় পুলিশ মানিককে গ্রেপ্তার করেছে।

ছবি: টুইটার থেকে

এই নিউজ মোট   4166    বার পড়া হয়েছে


এসিড সন্ত্রাস



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.