01:40pm  Saturday, 20 Jul 2019 || 
   
শিরোনাম



ফুলছড়ির ব্রহ্মপুত্র নদীতে হিন্দু সম্প্রদায়ের ঐহিত্যবাহি গঙ্গাস্নান মেলা
১৩ এপ্রিল ২০১৯, ৩০ চৈত্র ১৪২৫, ৬ শাবান ১৪৪০



গাইবান্ধা প্রতিনিধি: গাইবান্ধা ফুলছড়ি উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদীতে সনাতন হিন্দু সম্প্রদায়ের গঙ্গাস্নান মেলা গতকাল শনিবার অনুষ্ঠিত হয়। হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন প্রত্যুষে ব্রহ্মপুত্র নদীতে স্নান করে এবং সেখানে ঈশ্বরের কাছে ধ্যানে-জ্ঞানে-মনমগ্নে ঈশ্বরকে আরাধনা করেন ও ঈশ্বরের অনুরাগী হন।

প্রতিবছরের ন্যায় এবারও দিনব্যাপী ব্রহ্মপুত্র নদীর পাড়ে ঐতিহ্যবাহী গঙ্গাস্নান মেলা অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষে নদীর পাড়ে  সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের গঙ্গাদেবীর পূজার আয়োজন করা হয়। হিন্দু পুণ্যার্থী নদীতে স্নান সেরে গঙ্গা দেবীর পূজা অর্চনা করে। মেলা উপলক্ষে নদীর পাড়ে গ্রামীণ ঐতিহ্যবাহী চারুকারু পণ্য, মাটির খেলনা, প্লাস্টিকের সামগ্রী, গ্রামীণ মেলা সম্পর্কিত খাদ্য সামগ্রী বিক্রয়ের জন্য দোকান বসে। এছাড়া শিশু-কিশোরদের জন্য নাগরদোলাসহ বিভিন্ন খেলারও আয়োজন করা হয়েছে। বিভিন্ন শ্রেণি পেশার বিপুল সংখ্যক মানুষ এই মেলা উপভোগ করতে এবং পণ্য সামগ্রী ক্রয়ের জন্য মেলায় ভিড় করে।

উল্লেখ্য, মেলায় হিন্দু ধর্মালম্বীরা একে অপরের মিলন মেলায় একিভূত হন। সকল হিংসা বিদ্বেষ ভুলে এক জায়গায় স্নান করেন। গঙ্গা স্নান মানে বুঝায় হিন্দু সম্প্রদায়ের পাপমোচন। জন্মলগ্ন থেকে অদ্যাবধি পর্যন্ত জীবনে যত অন্যায়-অত্যাচার-অবিচার তা মোচনের লক্ষে হিন্দুরা সারি বেঁধে ব্রহ্মপুত্র নদীতে গিয়ে প্রতি বছরের মতো এবারও গঙ্গাস্নান বা মিলন মেলায় দলবদ্ধ হন। সেখানে উপাসনা করেন। হিন্দুদের এই গঙ্গাস্নান ঐতিহ্যবাহী। হিন্দুরা যুগযুগ ধরে সত্যযুগ থেকে কলি অবতার পর্যন্ত এই গঙ্গাস্নান করে আসছেন।

সেখানে পুলিশ প্রশাসন উপজেলা প্রশাসন যথেষ্ট সহযোগিতা করেন এবং স্থানীয় জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার অ্যাড. ফজলে রাব্বী মিয়ার রাজনৈতিক নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা গঙ্গাস্নান মেলা পরিদর্শন করেন এবং তাদের খোঁজ খবর নেন।

ফারুক হোসেন, গাইবান্ধা।

এই নিউজ মোট   768    বার পড়া হয়েছে


ধর্ম



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.