05:50pm  Tuesday, 22 Oct 2019 || 
   
শিরোনাম
 »  ২২ অক্টোবর; আজকের দিনে জন্ম-মৃত্যুসহ যত ঘটনা     »  সৌদির ধরপাকড়ে বিপাকে প্রবাসীরা, আরও ৭০ বাংলাদেশিকে ফির‌তে হ‌য়ে‌ছে     »  মা কে বিয়ে করায় সৎ বাবাকে তুলেই নিয়ে গেল ছেলে     »  পঞ্চগড়ে গলির রাস্তায় পাওয়া সেই কন্যাশিশুটির মাকে ঠাকুরগাঁওয়ে পাওয়া গেছে     »  বাংলাদেশ বিনির্মাণে শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই     »  বোরহানউদ্দিনের সেই বিপ্লবসহ তিনজন কারাগারে     »  ভোলাহাট থানায় চলমান সকল সমস্যা নিয়ে আলোচনা     »  ঝালকাঠিতে নবাগত অতিঃ পুলিশ সুপারকে জেলা পুলিশের ফুলেল শুভেচ্ছা     »  শাহজালালে ২৯৯ যাত্রী নিয়ে সৌদি বিমানের জরুরি অবতরণ     »  খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি মিলেছে    



মোস্তফা মঈনউদ্দিনের “মধুর ভালোবাসা''
২ মে ২০১৯, ১৯ বৈশাখ ১৪২৬, ২৫ শাবান ১৪৪০



প্রবাস প্রতিবেদক: আসিক আর আলেয়া রিক্সা দিয়ে কোথাও যাচ্ছে, মাঝ পথে বৃষ্টি নামছে, রাস্তার পাশে যাত্রী ছাউনি দেখে রিক্সাওয়ালাকে থামতে বলে আসিক। দু’জন গিয়ে যাত্রিছাউনিতে বসে বৃষ্টি দেখছে। রিক্সাওয়ালা দেরি করতে পারবেনা বলে টাকা নিয়ে চলে যায়, নিরব নিস্তব্ধ স্থানে শুধু আসিক আর আলেয়া বসে বসে বৃষ্টি আওয়াজ অনুভব করছে। তখন বৃষ্টির মিষ্টি মধুর গন্ধ চারদিকে বিরাজমান। কেন জানি আজকের ঝুম বৃষ্টিটা খুবই আনন্দের মনে হচ্ছে তাদের কাছে, যদিও তারা দু’জন প্রেম করছে অনেক আগে থেকেই। তবু বৃষ্টির রিমঝিম শব্ধে নতুন করে প্রেমে পরার মতো অনুভূতি পায় আসিক-আলেয়া।

হঠাৎ আবেগতারিত আলেয়ার কন্ঠ--এই চল না বৃষ্টিতে ভিজি!

আসিক একটু অবহেলার স্বরে জানায়, পাগল, !!! বৃষ্টিতে ভিজলে ঠাণ্ডা লাগবে।

আলেয়া অভিমানের কন্ঠে বেলে, যাও, তুমি একটা আনরোমান্টিক। ভিজতে হবে না, বলেই আলেয়া দৌড়ে নেমে বৃষ্টিতে ভিজতে লাগলো।
আসিক চিৎকার করে লৈতে থাকে, এই পাগলি চলে আস, ঠাণ্ডা লাগবে। আলেয়া কোন কথা না শুনেই বৃষ্টিতে ভিজছে আর আনন্দে নাঁচতে থাকে।

আসিকের কাছে থাকা ছাতাটা নিয়ে দৌড়ে গিয়ে আলেয়ার মাথার উপর ধরে দাঁড়াল আসিক, আর বলতে থাকে---চল ঠাণ্ডা লাগবে, আলেয়া আসিকের হাত থেকে ছাতাটা ফেলে দিয়ে শক্ত করে জরিয়ে ধরল আসিককে।

আসিক-দেখ পাগলী কি করে!!!
আলেয়া- বেশ করি। ছাতা হাতে বৃষ্টিতে ভিজে কি আর মজা আছে? প্রশ্ন রাখে আলেয়া।

আসিক মনের চোখে অবাক হয়ে দেখছে আলেয়াকে, আর বুক দিয়ে আগলে রাখছে পাগলিটাকে। তবে, আসিক কাঁদছে। আনন্দ অশ্রু যা বৃষ্টিতে বোঝা যাচ্ছে না।

আসিক -আলেয়া প্রেমের বন্ধনে আবদ্ধ হবার কিছুদিন পর, মানে আজ থেকে কয়েক মাস আগের কথা, একদিন আসিক আলেয়াকে বলেছিল, "আমি বৃষ্টি খুব ভালোবাসি”। একদিন ভিজবে আমার সাথে? আলেয়া জানিয়েছিল--আমার বৃষ্টিতে ভিজলে ঠাণ্ডা লাগে, এছাড়াও আমি বৃষ্টি ভয় পাই।
আসিক জানিয়েছিল- আমার বুকে লুকিয়ে রাখব, আর ঠাণ্ডা লাগবে না। আমি থাকতে তোমার ভয় কী?
তারপরেও আলেয়া বলেছিল ভিজব না খুব ভয় পাই। সেদিন আসিক খুব মন খারাপ করেছিল। আর আজ সেই মেয়ে আসিককে বুকে টেনে বৃষ্টিতে ভিজছে। আজ যে সে আসিকের একটি ইচ্ছে পূরন করল বুঝতেই দিল না পাগলিটা ।
ঠিক বছর পর ভোর রাত থেকে বৃষ্টি হচ্ছে, টিনের চালের বৃষ্টির আওয়াজে আলেয়ার ঘুম ভেঙ্গে যায়। জানালা দিয়ে বৃষ্টি দেখতে দেখতে আসিকের উদ্দ্যেশে আলেয়া বলতে থাকে- “দেখছ আজ আবার সেই দিনের মতো ঝুম বৃষ্টি হচ্ছে”। আসিকের কোন আওয়াজ না পেয়ে আলেয়া আসিককে ধাক্কা দিয়ে বলে “এই সকাল হয়ে গেছে ওঠো”

আশিক আলেয়াকে বলে, আর একটু শক্ত করে জরিয়ে ধরে, ঘুমাও।

আজ থেকে এক বছর আগে এ্ই দিনে তারা কাজী অফিস থেকে বিয়ে করে প্রথম রাত কাটিয়ে ছিল এক সাথে। আলেয়ার অন্যখানে বিয়ে ঠিক হয়ে গিয়েছিল তাই পালিয়ে বিয়ে করেছিল তারা। আজ বিয়ের এক বছর পূর্ণ হল, সেই হিসেবে আসিক রাতটা শেষ হতে দিতে চাচ্ছিলনা। আরো অনেকটা সময় আলেয়া নামের পাগলিটাকে বুঝে রেখে ঘুমাতে চায় আসিক।

এদিকে আজকের দিনটাকে স্বরনিয় করে রাখতে আলেয়া জানায়, ওই ছাড়, অনেক কাজ আছে। আজ কি মনে আছেতো?
আসিক-হুম, হ্যাপি এনিভার্সেরি।
আলেয়া-হ্যাপি এনিভার্সেরি। আচ্ছা, আজ কোথায় নিয়ে যাবে ?

আসিক- যাও ঘরের কাজ শেষ করে রেডি হও, বলছি!

ড্রেসিং টেবিলের সামনে আনমনে সাঝছে আলেয়া। মিররে আলেয়াকে নিষ্পলক চোখে দেখছে আসিক। আজ আরো অনেক বেশি সুন্দর লাগছে আলেয়াকে। পিছন দিক থেকে মিররের মুখোমুখি হয়ে আলেয়াকে ঝড়িয়ে দরে আসিক! মাথা তুলে আসিকের চোখে চোখ রাখে আলেয়া, আলতো করে আলেয়ার কপালে চুম্বন খায় আসিক। আলেয়া দাড়িয়ে মুখোমুখি আসিকের, খানিকটা সময়ের জন্য আসিকের বুকের ভিতরে যেন অন্য জগতে চলে যায় আলেয়া। অনেকটা সময় পেরিয়ে গেল বলে আলেয়াকে নিয়ে শপিং-এ গেল আসিক।

আসিক--দেখতো শাড়িটা কেমন ?
আলেয়া মিষ্টি হাসি দিয়ে---সুন্দর না।
আসিক জানায়- তুমি পরলে সুন্দর হয়ে যাবে
আলেয়া শাড়িটা রেখে দিয়ে বলে, ধুর, কি বল? বাজে শাড়ি। পেত্নি লাগবে পরলে। চল অন্য দিকে যাই
আসিক দেখল, শাড়িটার দাম একটু বেশি তাদের মতো মধ্যে বিত্ত পরিবারের জন্য কষ্ট হয়ে যাবে। মন খারাপ হয়ে গেল তার । বাড়ি ফিরে আসে তারা।
আসিক একটু পরেই জানায়- আমার একটু কাজ আছে । যাব আর আসব।
আলেয়া- ঠিক আছে যাও, তবে তারাতারি আসবা, অ, সাবধানে যেও!
এরই মধ্যে আবারো বৃষ্টি, আলেয়া সব রেডি করে বসে আছে। এমন সময় ভিজতে ভিজতে আসিক আসল।
আলেয়া - তোমাকে কে আসতে বলছে এতো বৃষ্টিতে। একটু পর আসলে কি হতো ? এই ছেলে কবে বড় হবে!!! বলতে-বলতে তোয়ালে দিয়ে আসিকের মাথা মুছে দিচ্ছে আলেয়া।
আসিকের হাতে থাকা পিছন থেকে সামনে এনে বলে-এই নাও (হাতে একটা প্যাকেট ধরিয়ে দিয়ে আসিক), আলেয়া-এটাতো সেই শাড়িটা। তোমাকে কে আনতে বলছে এটা। বললাম না ভালো না,
আসিক- তোমাকে পেত্নি সাজলে কেমন লাগে তাই দেখতে আনলাম। আলেয়া জরিয়ে ধরে কেঁদে ফেললো।

বিশ্বাস করেন আপনি যদি ভালোবেসে আপনার পাগলিটাকে এক গুচ্ছ গোলাপও এনে দেন সে খুব খুশি হবে। সম্পর্কে ভালোবাসাটাই প্রধান, দামি গিফ্ট না। পাগলিটাকে একটু ভালোবেসে, একটু সময় দিয়ে দেখবেন, আপনারাই সবচেয়ে বেশি সুখী হবেন। এরই নাম “মধুর ভালোবাসা''

মোস্তফা মঈনউদ্দিন, দাম্মাম, সৌদি আরব

সম্পাদনা- শেখ মোঃ ওবাইদুল কবির

শারমিন ফিরে পেতে চায় তার ‘বাবা-মা’কে


এই নিউজ মোট   1788    বার পড়া হয়েছে


মনোকথা



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.