01:59pm  Monday, 27 Jan 2020 || 
   
শিরোনাম



দিনাজপুরে সৌদি আরবের বিখ্যাত আজোয়া জাতের খেজুর চাষে মাহাবুবুরের সাফল্য
২৫ জুলাই ২০১৯, ১০ শ্রাবণ ১৪২৬, ২১ জিলকদ ১৪৪০



বিশেষ প্রতিবেদক,দিনাজপুর থেকেঃ সৌদি আরবের বিখ্যাত আজোয়া জাতের খেজুর চাষ করে  সফল্য পেয়েঠেন দিনাজপুর শহরের যুবক মো. মাহাবুবুর রহমান। শহরের চাউলিয়াপট্রিস্থ শহীদ মিনার মোড় সংলগ্ন  এলাকার মাহাবুবুর রহমানের পিতা মো. মোয়াজ্জেম হোসেন ও মাতা শামসুন নাহান এক সময় সৌদি প্রবাসি ছিলেন। পিতা-মাতার অনুপ্রেরণায় মো.মাহাবুবুর রহমান বাড়ির ছাদে এ খেজুর চাষে সফল হয়েছেন। তিনি এ জাতের খেজুর চাষের বিস্তৃতি ঘটাতে ব্যাপক উদ্যোগও নিয়েছেন। ইতোমধ্যে এ খেজুরের চারা উৎপাদন শুরু করেছেন। চারা উৎপাদনে সাফল্যও পেয়েছেন ব্যাপক।

সরেজমিনে আজ বৃহস্পতিবার মো.মাহাবুবুর রহমান বাড়ির ছাদে গিয়ে দেখা যায় একটি গাছের ধোবায় ঝুলছে সৌদি আরবের বিখ্যাত আজোয়া জাতের খেজুর। তিনি বাড়ির ছাদে গড়ে তুলেছেন আজোয়া খেজুর চারার একটি মিনি নার্সারি। সেখানে অসংখ্য গাছের চারা রয়েছে। ছাদের কোণায় রয়েছে একটি গাছ। গাছের ২টি থোকায় ঝুলছে সবুজ-গোলাপি-হলুদ রঙের বড় বড় খেজুর।বাড়ির ছাদে মাটিতে রোপণ উপযোগী ৩ শতাধিক চারা প্রস্তুত রয়েছে। পচলতি বছরের শেষের দিকে চূড়ান্তভাবে বড় পরিসরে জমিতে চারা রোপণ ও বিক্রির উদ্যোগ নেবেন এসব চারা। মাহাবুবুর রহমান বাড়ির ছাদে এ খেজুর চাষের সফলতার খবর ছড়িয়ে পড়ায় ইতোমধ্যে গাছের চারা কিনতে বিভিন্ন জেলা থেকে লোক আসছেন।

মাহবুবুর রহমান জানান, তার পিতা মো. মোয়াজ্জেম হোসেন প্রায় ৩৫ বছর মদিনায় চাকরি করেছেন। অবসরের পর বাংলাদেশে চলে আসেন। মদিনায় আজোয়া জাতের খেজুরের কিছু বিচি সংগ্রহ করেন তিনি। তার পিতা যখন মদিনা থেকে প্রথম আজোয়া জাতের খেজুরের বিচি আনেন, তখন মা শামসুন নাহার নিজহাতে একটি মাটির পাত্রে বিচি রোপণ করেছিলেন।

তিনি বলেন,আজোয়া জাতের খেজুর গাছের গড় আয়ু প্রাায় ১০০ বছর। এর জন্য পরাগায়ন খুবই জরুরি। কোন বাগানে ২০টি চারা রোপণ করলে সেখানে ১টি পুরুষ গাছ রোপণ করতে হবে। প্রথমে একটি বিচিকে একটি মাটির পাত্রে রোপণ করতে হয়। তারপর গাছের চারা বড় হয়ে ৪/৬ ইঞ্জি হলে অন্য একটি বড় মাটির পাত্রে রোপণ করতে হয়। আজোয়া জাতের গাছকে যত ভালো পরিচর্যা করা হবে, তত ভালো থাকবে। মাটিতে রোপণের প্রায় ৪ বছরের মাথায় প্রথম ফল আসে। সাধারণতঃ গাছে ফুল আসে ফেব্রুয়ারি মাসের দিকে । তখন পুরুষ গাছ থেকে পরাগায়নের জন্য পাউডার সংগ্রহ করতে হয়। পরাগায়নের বিশেষ সময় পাউডারগুলো ফুলে ছিটিয়ে দিতে হয়। যেদিন গাছে প্রথম ফুল আসে সেদিনই কমপক্ষে ৩/৪ বার পাউডার ছিটাতে হবে বলে তিনি জানান মাহবুবুর রহমান।

শাহ্ আলম শাহী, দিনাজপুর।

যেভাবে ঘুরে দাড়িয়েছেন অ্যাসিড আক্রান্ত অর্নিকা মাহরীন


এই নিউজ মোট   18566    বার পড়া হয়েছে


সফলতার গল্প



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.