09:09pm  Sunday, 18 Aug 2019 || 
   
শিরোনাম
 »  ১৭ আগষ্ট; আজকের দিনে জন্ম-মৃত্যুসহ যত ঘটনা      »  এক বছরের জন্য বহিষ্কার বহিষ্কার হলেন এএসপি কুদরত-ই-খুদা     »  চামড়া নিয়ে উদ্ভট পরিস্থিতির কারণ লেনদেনের জটিলতা     »  ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী করতে হবে      »  কোচ হিসেবে সাকিব-তামিমদের দায়িত্ব পেলেন রাসেল ডমিঙ্গো     »  এখনই অবসর নিতে চান না মাশরাফি      »  গোবিন্দগঞ্জে সেনা সদস্যের হাতে কাঠমিস্ত্রি নিহত     »  সকল আন্তঃনগর ট্রেন মহিমাগঞ্জ রেল স্টেশনে স্টপেজের দাবীতে মানববন্ধন     »  শিশুকে বলাৎকার করায় সুন্দরগঞ্জে যুবক গ্রেফতার     »  গাইবান্ধায় ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা   



রোহিঙ্গা শিল্পী হাবিবুরের ‘কষ্ট’
২৯ জুলাই ২০১৯, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ২৫ জিলকদ ১৪৪০



কুতুপালং-বালুখালী শরণার্থীশিবিরে শরণার্থীর সংখ্যা ৬ লাখের ওপর। এত এত মানুষের ভিড়ে ম্যান্ডোলিনবাদক হাবিবুর রহমানকে খুঁজে পাওয়া যাবে কি না, সে নিয়ে সংশয়ই ছিল। তবে খুব বেশি বেগ পেতে হলো না। পাহাড়ের বেশ উঁচুতে দাঁড়িয়ে যখন হাবিবুরের খোঁজ করা হলো, তাঁর বাড়ি দেখিয়ে দিতে অনেকেই আগ্রহী হলেন। আঁকাবাঁকা পাহাড়ি পথ মাড়িয়ে পাওয়া গেল শিল্পীকে। প্রথম আলোর জন্য তিনি গত শুক্রবার গেয়ে শোনালেন তাঁর স্বরচিত একটি গান।

হাবিবুর রহমান ছোটবেলা থেকেই গানপাগল। নিজেই খুঁজে নিয়েছিলেন ওস্তাদকে। মিয়ানমারে ওস্তাদ শামসুল হকের কাছ থেকে ম্যান্ডোলিন বাজানো শিখে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সম্মানীর বিনিময়ে বাজাতেন। বিয়ের অনুষ্ঠানে ডাক পেতেন বেশি। এক এক আসরে বাজিয়ে তাঁর রোজগার ছিল বাংলাদেশি টাকায় ছয়-সাত হাজারের মতো। এখনো বাজান তিনি। কক্সবাজারে কর্মরত বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থার ডাকে গানবাজনা করেন। তিনি যেমন ম্যান্ডোলিন বাজাতে শিখেছিলেন ওস্তাদের কাছে, তেমনি নিজেও শিখিয়েছেন আরও চারজনকে। আশা রাখেন, তাঁর শিষ্যরাও অনুপ্রাণিত করবে অন্যদের।

শিল্পী হিসেবে জনপ্রিয় হাবিবুর রহমান থাকেন ছোট্ট একটা খুপরিতে। আশা করেন, একদিন নিজের দেশে ফিরবেন। শুক্রবার তাঁর ঘরে গিয়ে দেখা গেল, হাবিবুর রহমান স্ত্রী হাজেরা বেগমকে নিয়ে ইট-বালু-সিমেন্ট দিয়ে ঘর মেরামতের কাজ করছেন। অন্ধকার ঘর, তবে মাথার ওপরে শিল্পীকন্যা কাগজের ফুল দিয়ে সাজানোর চেষ্টা করেছে। সাক্ষাৎকার প্রার্থনা করলে জানতে চাইলেন, এটা কবে কোথায় প্রচারিত হবে। তারপর গায়ে একটা ফুলহাতা শার্ট গলিয়ে গাইতে বসলেন প্রথম আলোর জন্য।

হাবিবুর রহমান যে গানটি করলেন, তার অর্থ বাংলায় এমন, আরাকানের রোহিঙ্গা যারা, তাঁরা ঘরবাড়িছাড়া, নির্যাতিত। এই চড়ুই পাখির মতো গরিব বসতিতে থেকে রোহিঙ্গাদের কী গতি হবে। আল্লাহ সমতলের মোরগ বানিয়ে আর কত দিন রাখবে? মক্কা শরিফে এখন যাঁরা আছেন, তাঁদের বলি মিয়ানমারে আমরা কিছু কষ্ট পেয়েছি, শরণার্থীশিবিরেও কিছু কষ্ট আছে। রোহিঙ্গাদের মনে অনেক কষ্ট। ছোট ছোট দুধের শিশুকে মার কোল থেকে নিয়ে ছুড়ে ফেলেছে। তারা দুধের জন্য চিৎকার করেছে। রোহিঙ্গারা ঘরবাড়ি ছাড়া, নির্যাতিত। বাংলাদেশের সরকার না থাকলে রোহিঙ্গারা কোথায় স্থান পেত? এই সরকারের মনে বেশি বেশি দয়া। তারাই রোহিঙ্গাদের রেখেছে। রোহিঙ্গারা ঘরবাড়ি ছাড়া, নির্যাতনের শিকার।



এই নিউজ মোট   480    বার পড়া হয়েছে


সংগীত



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.