09:37am  Monday, 09 Dec 2019 || 
   
শিরোনাম
 »  গণপূর্ত অরবরিকালচারের কোটি টাকা লোপাট করছে এক সময়ের ছাত্রদল নেতা      »  ৮ ডিসেম্বর ; আজকের দিনে জন্ম-মৃত্যুসহ যত ঘটনা     »  প্রধানমন্ত্রীকে পেয়ে উচ্ছ্বসিত সালমান-ক্যাটরিনা     »  সরকারের লক্ষ্য দেশের চলচ্চিত্র শিল্পের স্বর্ণযুগ ফিরিয়ে আনা     »  এবার চলন্ত বাসে বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা এক যাত্রীর     »  প্রেমের ফাঁদে ফেলে বহু প্রবাসীকে নিঃস্ব করেছে দুই কলেজছাত্রী      »  সম্পর্কের ইতি টানতে রুম্পাকে ছাদ থেকে ফেলে দেন সৈকত     »  কালীগঞ্জে বুড়ি ভৈরব নদী দখল করে পুকুর তৈরি করছেন প্রভাবশালী     »  শাজাহান খানের সমালোচনায় এমপি নিক্সন     »  চোখের হেফাজত করবেন যেভাবে   



এক নারীকে দেড় ঘণ্টায় ৩ বার ধর্ষণ করেন ওসি উছমান
১০ আগস্ট ২০১৯, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ৮ জিলহজ ১৪৪০



খুলনা জিআরপি থানায় এক নারীকে দেড় ঘণ্টায় ৩ বার ধর্ষণ করেন ওসি উছমান, পরে ধর্ষণ করেন ডিউটি অফিস্যারসহ আরো ৪ পুলিশ

ব্যুরো প্রধান,  খুলনা : খুলনা জিআরপি থানায় এক নারীকে ওসি উছমান গণি পাঠান একাই ৩ বার ধর্ষণ করেন। তারপর ধর্ষণ করেন মুখে বসন্তের দাগওয়ালা ডিউটি অফিসার। তারপর আরও ৩ জন ধর্ষণ করেন। ধর্ষণের সময় ৫ জনই কনডম (জন্মনিয়ন্ত্রন সামগ্রী) ব্যবহার করেন। ধর্ষণের ঘটনা প্রকাশ করলে ওই নারীর পরিবারের সবাইকে একটার পর একটা মামলা দেওয়ারও হুমকি দেন ধর্ষকরা।

জিআরপি থানায় পুলিশের হাতে গণধর্ষণের শিকার নারীর দায়ের করা মামলা এজহারে এসব তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে। আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতেও ওই নারী এসব কথা বলেন। মামলা দায়েরের পর তা আদালতকে অবহিত করা হলেও এখনও কোনো আসামি গ্রেফতার হয়নি।

গত ৯ আগস্ট সকালে দায়ের হওয়া মামলায় ধর্ষিতা নারী উল্লেখ করেন, গ্রেফতারের পর ডিউটি অফিসারের সহায়তায় ওসি তার উপর ব্যাপক নির্যাতন করেন। তারপর রাত দেড়টার দিকে তাকে চোখ বেঁধে থানার অপর একটি কক্ষে নিয়ে যায় ডিউটি অফিসার। ডিউটি অফিসার ওড়না দিয়ে তার মুখ বাঁধে। ওসি সেই কক্ষে প্রবেশ করে ভেতর থেকে দরজা আটকে দেন। তারপর দেড় ঘণ্টা ধরে ওসি ৩ বার ধর্ষণ করেন। ওসি ওই কক্ষ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর ডিউটি অফিসার প্রবেশ করে। ভেজা গামছা দিয়ে তার শরীর মুছে ডিউটি অফিসারও ধর্ষণ করে। এরপর আরও ৩ জন তাকে ধর্ষণ করে।

এই বিষয়ে মামলা দায়ের করার জন্য আদালত থানা পুলিশকে নির্দেশ দেওয়ার পর গত ৯ আগস্ট মামলা নেয় জিআরপি পুলিশ।

প্রসঙ্গত, খুলনা জিআরপি থানার ওসি উছমান গণি পাঠানসহ ৫ পুলিশ সদস্য ৩ সন্তানের জননীকে গণধর্ষণ করেছে বলে আদালতে দাঁড়িয়ে ৪ আগস্ট অভিযোগ করেন ওই নারী। খুলনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ওই নারী এই অভিযোগ করেন। ঘটনা তদন্তে পাকশী রেলওয়ে জেলা পুলিশ সুপার মো. নজরুল ইসলাম ৫ আগস্ট তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। তদন্ত কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়।

সাইফুল ইসলঅম কবির, খুলনা ব্যুরো


এই নিউজ মোট   1630    বার পড়া হয়েছে


নারী ধর্ষণ



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.