08:37pm  Monday, 18 Nov 2019 || 
   
শিরোনাম
 »  আজ কম্বোডিয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকা ছেড়েছেন স্পিকার     »  ‘আত্মীয়তার বন্ধন ছিন্নকারী জান্নাতে যাবে না’     »  পাকিস্তান ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে      »  গ্যাসলাইনের পুরনো পাইপের লিকেজ থেকে গ্যাস জমে বিস্ফোরণ ঘটেছে!     »  প্রথম বিশ্বজয়ী নাজমুন নাহার গেম চেঞ্জার অ্যাওয়ার্ড পেলেন     »  ইউএই’র উদ্যোক্তাদের আরও বড় আকারের বিনিয়োগ প্রত্যাশা প্রধানমন্ত্রীর     »  দোতলা থেকে লিফট ছিঁড়ে পড়ে গেলেন বিএনপি নেতারা     »  পেঁয়াজে ২ সপ্তাহ মুনাফা না করার আহ্বান জানান মেয়র খোকন      »  বাংলাদেশ ইমার্জিং দলের কাছে উড়ে গেল নেপাল, সেমিতে শান্তরা     »  এক মামলায় সাজা খেটে বেরিয়েই ডাকাতি, 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত   



আমি পাপার বুকে ঘুমাতে চাই, কোথায় গিয়েছে পাপা?
৩০ আগস্ট ২০১৯, ১৫ ভাদ্র ১৪২৬, ২৮ জিলহজ ১৪৪০



আজ শুক্রবার আন্তর্জাতিক গুম দিবসে জাতীয় প্রেস ক্লাবে গুম প্রতিরোধ দিবসের আলোচনা সভা এমন অনেক স্বজনের অশ্রুজলে সিক্ত হয়। ছেলের অপেক্ষায় মা-বাবা, স্বামীর অপেক্ষায় স্ত্রী, বাবার অপেক্ষায় সন্তান, ভাইয়ের অপেক্ষায় ভাই। প্রিয়জনদের ফিরে পেতে গুম হওয়া ব্যক্তিদের স্বজনেরা প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

'পাপার বুকে আমি ঘুমাতে চাই। পাপা তো আসে না। প্রতিদিন আমি পাপার জন্য অপেক্ষায় থাকি। কোথায় গিয়েছে পাপা?'- এভাবেই বাবাকে স্মরণ করছিল ২০১৩ সালে গুম হওয়া বংশালের ছাত্রদল নেতা পারভেজ হোসেনের ৭ বছর বয়সী কন্যা হৃদি হোসেন।


সাড়ে ৩ বছর ধরে নিখোঁজ রাজধানীর রামপুরা থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এসএম মোয়াজ্জেম হোসেন তপুর মা সালেহা বেগমের অভিযোগ, স্থানীয় যুবলীগের নেতারা প্রশাসনকে ব্যবহার করে সাজ্জাদকে গুম করেছে। তিনি বলেন, বছরের পর বছর ছেলেকে খুঁজতে খুঁজতে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তিনি। তার ভাষায়, 'ছেলের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে তিনবার দেখা করেছি, কোনো ফল পাচ্ছি না। এই দেশে কি কোনো আইন নেই? আর কতদিন সন্তানের জন্য অপেক্ষা করব?'

২০১৬ সালের ৪ অগাস্ট বাবার জন্য ওষুধ কিনতে গিয়ে নিখোঁজ হন কুষ্টিয়ার হোমিও চিকিসক শেখ মোকলেছুর রহমান জনি। তার বাবা শেখ আবদুর রাশেদ কান্নায় ভেঙে পড়ে বলেন, 'আমার ছেলে কোনো রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল না। তারপরও স্থানীয় থানার এক এসআই আমার ছেলেকে তুলে নিয়ে গুম করেছে। মামলা করেও কোনো কাজ হয়নি। আর কতকাল অপেক্ষায় থাকব ছেলের জন্য?'

৬ বছর আগে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে নিখোঁজ হন রনি চৌধুরী। তার সন্ধান দেওয়ার আকুতি জানিয়ে মা আঞ্জুমানারা বেগম জানান, তার ছেলেকে একটি মাইক্রোবাসে করে তুলে নিয়ে যায় সাদা পোশাকধারীরা। তারপর আর কোনো খোঁজ পাননি। তার ভাষায়, 'ছেলের খোঁজে কত মানুষের কাছে গিয়েছি তা বলে শেষ করতে পারব না। প্রতিদিন অপেক্ষায় থাকি, আমার ছেলে এই তো বোধ হয় এসে গেল! এভাবে আর কত দিন?'

নিখোঁজ বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীর ছেলে আবরার ইলিয়াস বলেন, 'দীর্ঘ সাত বছর ধরে বাবার কোনো খোঁজ পাচ্ছি না। আমার মা এখন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বাবা গুম হওয়ার পর থেকে আমাদের মধ্যে জন্মদিন বা ঈদের দিন বলে কিছু থাকে না।' ৬ বছর আগে নিখোঁজ বিএনপি নেতা সাজেদুল ইসলাম সুমনের ১২ বছরের মেয়ে রাইতা ইসলাম বলেন, 'আমার বয়স যখন ছয় বছর তখন বাবা গুম হন। অনেক কষ্টের মধ্যে দিয়ে আমি বড় হচ্ছি। বাবার জন্য আর কত বছর অপেক্ষা করব?'

কুষ্টিয়া জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন ২০১৫ সালের ২১ অগাস্ট নিখোঁজ হন। সাজ্জাদের স্ত্রী ও কন্যাসহ সভায় আসা তার মা সাহিদা বেগম কান্নায় ভেঙে পড়ে বলেন, 'আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোকেরা আমার ছেলের সাথে তিনজনকে ধরে নিয়ে যায়। দুইজনকে ছেড়ে দিলেও আমার ছেলেকে তারা ছাড়েনি। আমার ছেলে কোনো অপরাধ করে থাকলে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হোক, তাতে আমার আপত্তি নেই। তারপরও আমার ছেলেকে আপনারা ফিরিয়ে দেন।'

পার্বত্য চট্টগ্রামের ইউনাইটেড ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক মাইকেল চাকমা চলতি বছর ৯ এপ্রিল নিখোঁজ হন। তার বোন সুভদ্রা চাকমা বলেন, 'আমার ভাইকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোকেরা বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। প্রথমে তারা আটকের বিষয়টি স্বীকার করলেও পরে তা অস্বীকার করে।'

২০১০ সালে গুম প্রতিরোধ বিষয়ে আন্তর্জাতিক কনভেনশন জাতিসংঘে পাস হওয়ার পরের বছর থেকে ৩০ অগাস্টকে বিশ্বব্যাপী গুমের শিকারদের স্মরণে আন্তর্জাতিক দিবস হিসেবে পালন করা হয়। মারুফা ইসলাম ফেরদৌসির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের অধ্যাপক আসিফ নজরুল, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকী, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক ও অধ্যাপক আকমল হোসেন।


এই নিউজ মোট   1776    বার পড়া হয়েছে


শিশু অধিকার



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.