11:52pm  Saturday, 19 Oct 2019 || 
   
শিরোনাম



ক্ষমতা দীর্ঘস্থায়ী করতে তৃনমূল কর্মিদের বঞ্চিত করছেন নেতারা
৭ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার। ২৩ আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ। ৭ সফর ১৪৪১



মেয়াদ অনুসারে ২০১৯ সালে ৫ ধাপে অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিল উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। সেই হিসেবে এরই মধ্যে নির্বাচন কমিশন সফলভাবে শেষ করেছে ৪র্থ ধাপ পর্যন্ত। পঞ্চম ধাপে ১৭টি উপজেলার মধ্যে ৮টি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্টিত হবে ১৪ অক্টোবর। অতিতের মতো বিভিন্ন নির্বাচনি এলাকায় ক্ষতাসীনদের বিরুদ্ধে নানা ধরনের অভিযোগ থাকলেও এরই মধ্যে বঞ্চিত নেতা-কর্মিরা স্বতন্ত্র বা বিদ্রোহি প্রার্থি হয়ে জমিয়ে তুলেছেন যার যার নির্বাচনি এলাকা। এর মধ্যে শেরপুর সদর উপজেলা অন্যতম।

ওকে নিউজে টুয়েন্টিফোর বিডি ডট কমের পক্ষ থেকে জানব এবং জানাব শেরপুর সদর উপজেলার নির্বাচনি সমস্যাগুলো কি। প্রায় চল্লিশ বছর আওয়ামীলীগের রাজনীতি করে আজ কেন স্বতন্ত্র থেকে নির্বাচন করতে আসলেন সেই বিষয়ে কথা হয় শেরপুর উপজেলার স্বতন্ত্র প্রার্থি মিনহাজউদ্দিন মিনালের সাথে।

মিনহাজউদ্দিন মিনাল জানালেন কিভাবে তাকে দল থেকে মনোনয়নে বঞ্চিত করা হয়েছে, তিনি বলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রত্যেকটি আসন থেকে তৃনমূলের পছন্দের ৩ জন করে প্রার্থির নাম দিতে বলেছিলেন, মিনালের অভিযোগে উঠে আসে শেরপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ঘরে ঘরে গিয়ে দস্তখত নিয়ে মাত্র একজনের নাম পাঠিয়েছিলেন দলীয় প্রধানের নিকট, সেই হিসেবে ৩৬ বছর আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে থেকেও তাকে নৌকা প্রতিক থেকে বঞ্চি করেছেন আওয়ামীলীগের শেরপুর জেলার সভাপতি।

দলীয় মনোনয়ন বা প্রতিক প্রাপ্তির নিয়ম জানতে চাইলে শেরপুর উপজেলা নির্বাচনে মোটরসাইকেল প্রতিক নিয়ে স্বতন্ত্রপ্রার্থি মিনহাজউদ্দিন জানান, দলীয় প্রধানের আদেশ কোন প্রকারেই পালন করেননি শেরপুর আওয়ামীলীগের সভাপতি, বর্তমান সংসদ সদস্য সরকার দলীয় হুইপ আতিউর রহমান আতিক, তিনি তিনজনের নামতো পঠানই নাই, যে একজনের নাম পাঠিয়েছেন তার নামও পাঠিয়েছেন তিনি নিজে ঘরে ঘরে গিয়ে তার নিজস্ব কিছু মানুষ দিয়ে দস্তখত করিয়ে।

দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে অনেক নির্যাতন সহ্য করার পরেও দল থেকে মনোনয়ন না পাওয়াটা কি তৃনমূল কর্মীদের বঞ্চিত করা হচ্ছে কি জানতে চাইলে মিনহাজ বলেন, অবশ্যই বঞ্চিত করা হচ্ছে। এই বঞ্চিত কেন করা হচ্ছে জানতে চাইলে মিনাল জানান, আতিকুর রহমান আতিক যদি কাউকে মনে করেন তার প্রতিদন্ধি হতে পারে তাহলেই তাকে আর কোন প্রকারে দলের কাজ করে উপরে উঠতে দিবেনা। প্রাপ্ত অধিকার থেকে এমনভাবে আরো অনেককেই বঞ্চিত করে আওয়ামীলীগ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিতে বাদ্য করেছেন আমাদের হুইপ মহোদয়। এমপি সাহেব চান তিনি এবং তার পরিবার আজিবন ক্ষমতায় থাকবে। এতে করে আওয়ামীলীগ বা দলের লাভ ক্ষতি তিনি দেখতে রাজিনা।

ক্ষমতায় থাকা দলের সাথে নির্বার্চনে প্রতিদন্ধিতা করে জয় লাভ করতে পারবেন কিনা জানতে চাইলে মিনহাজ বলেন, অবশ্যই আমি জিতব। কিভাবে জিতবে জানতে চাইলে মিনাল জানান, আমি কে, আমি কি করি, আমি রাজনিতি কাদের জন্য করি তা শেরপুরের মানুষ ভাল করে জানে। তাছারা আমি শেরপুরের মানুষের সাথে মিশে আছি। আমি এই টুকু বলতে পারি নির্বাচন কমিশন এবং শেরপুরের প্রশাসন যদি অতিতের মতো নিরপেক্ষ নির্বাচন হতে দেয় তাহলে আমাকে ঠেকানোর কোন উপায় থাকবেনা। জনগণই আমাকে আমার গন্তব্যে পৌঁছে দিবে। আর এতে করে জয়ি হবেন আমার নেত্রী জননেত্রি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর।

স্বতন্ত্র থেকে জয়লাভ করলে নৌকা বা শেখ হাসিনা জিতবে কিভাবে জানতে চাইলে মিনহাজউদ্দিন বলেন, তখন প্রমানিত হবে মাননিয় সংসদ সদস্য এবং হুইপ মহোদয়ের মতো নেতারাই আসলে তৃনমূল কর্মিদের কাজের মাধ্যমে উপরে উঠতে দিচ্ছেনা। তাদেরকে তাদের প্রাপ্য থেকে বঞ্চিত করছে। যার কারনে দল থেকে অনেকেই প্রতারিত হচ্ছে। আর যে সকল চেয়ারম্যান এবং উপজেলা চেয়ারম্যানরা নির্বাচনে ফেল করেছেন এর মূল কারন ছিল স্থানিয় পর্যায়ের আওয়ামীলীগের সভাপতি-সাধারন সম্পাদকদের ভূল প্রার্থি নির্বাচন করে নৌকা প্রতিক তাদের হাতে তুলে দেয়া। শেরপুরের নির্বাচন আর আতিউর রহমান আতিক সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে শুনে নিন মোটর সাইকেল প্রতিক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থি মিনহাজুর রহমানের মুখ থেকে-

মিনহাজ আরো বলেন, আসলে আমরা যারা দলকে, বঙ্গবন্ধুকে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভালবাসি তারা যত বঞ্চিত-ই হইনা কেন দল ছাড়বনা। তবে ক্ষনিকের জন্য কষ্ট পাই।


এই নিউজ মোট   7272    বার পড়া হয়েছে


নির্বাচন



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.