05:06am  Monday, 06 Jul 2020 || 
   
শিরোনাম
 »  বিদ্যুতের বিলে অবহেলা ও গাফিলতিকরাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা     »  হাসপাতাল, হোটেল আর বাসা এখন চিকিৎসক গুলশানা আক্তারের সংসার     »  এন্ড্রু কিশোরের শারীরিক অবস্থা ক্ষণে ক্ষণে খারাপের দিকে যাচ্ছে     »  ৩২টি দেশের ২৩৯ জন গবেষক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে চ্যালেঞ্জ করল     »  পরিস্থিতিতে স্বাভাবিক হলে ভার্চুয়াল আদালত বন্ধ হয়ে যাবে     »  বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির ৫৯২ সদস্যের মধ্যে কোন নেতা জেলে?     »  ‘শ্বেতাঙ্গই সেরা’; ২৪৪তম স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে ডোনাল্ড ট্রাম্প     »  দেশে ৫৫ জনসহ করোনায় মৃত্যু ২,০৫২ জন, শনাক্ত ২,৭৩৮ জনসহ আক্রান্ত ১,৬২,৪১৭ জন     »  বাগেরহাটে ভাই-ভাই -বাহীনি আতংঙ্ক; নির্ঘুম রাত কাটে কুমারী সহ মধ্য বয়সী নারীদের     »  চার বছরেও নির্মাণ হয়নি জনগুরুত্বপূর্ণ ব্রীজের এ্যাপোচ সড়ক অদৃশ্য!   



কুড়িগ্রামের উলিপুরে ব্রহ্মপুত্র নদে ফের তীব্র ভাঙন
৩ নভেম্বর ২০১৯, ১৮ কার্তিক ১৪২৬, ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১



রবিবার দুপুরে সরেজমিন উপজেলার হাতিয়া ইউনিয়নের নয়াদাড়া, কামারটারী, পালের ভিটা গিয়ে দেখা যায় ব্রহ্মপূত্র নদের ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। ভাঙনকবলিত এলাকার মানুষজন জানান, কুড়িগ্রামের উলিপুরে ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙনে এক সপ্তাহের ব্যবধানে বসতবাড়িসহ প্রায় তিনশতাধিক একর আবাদি জমি নদীগর্ভে চলে যাচ্ছে। এদিকে তিন কিলোমিটার ভাঙনে কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ড সম্প্রতি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে ভাঙনকবলিত ৬০ মিটার স্থানে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং করে। এ নিয়ে কালের কণ্ঠসহ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। সম্প্রতি ওই স্থানের পাশেই দেখা দিয়েছে তীব্র ভাঙন। বরাদ্দ না থাকায় ভাঙনরোধে কিছুই করার নেই বলে জানান পাউবো কর্তৃপক্ষ। 

গত ক'মাসে ভাঙনকবলিত প্রায় ৩ কিলোমিটারব্যাপী স্থানে শতাধিক বসতবাড়ি ও কয়েক শ একর আবাদি জমি নদীগর্ভে চলে গেছে। এ পরিস্থিতিতে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক ভাঙনকবলিত এলাকা পরিদর্শন করে দ্রুত ভাঙনরোধে ব্যবস্থা নিতে পাউবো কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। পানি উন্নয়ন বোর্ড তিন কিলোমিটার ভাঙনে ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে মাত্র ৬০ মিটার জায়গায় বালুভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং করেন। কিন্তু সম্প্রতি পাউবোর ওই ডাম্পিং করা স্থানের পাশেই নতুন করে ফের ভাঙন শুরু হলে গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে বসতবাড়িসহ আবাদি জমি নদীগর্ভে চলে যায়।

হাতিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হোসেন বলেন, যেভাবে ভাঙন শুরু হয়েছে এত দ্রুত কার্যকরী ব্যবস্থা না নিলে ওয়াপদা বাঁধসহ হাতিয়া ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা নদীগর্ভে চলে যাবে। উলিপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম বলেন, ৩ কিলোমিটার ভাঙনে ৬০ মিটার জায়গায় বালুভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং করা হয়েছে। পরবর্তীতে ৬০০ মিটারের টেন্ডার গৃহীত হয়েছে। অনুমোদন হলেই কাজ শুরু হবে।
নাটোরের বাগাতিপাড়ায় ভাঙা কালভার্টে ঝুঁকিপূর্ণ চলাচল
এই নিউজ মোট   3845    বার পড়া হয়েছে


জনদূর্ভোগ



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.