10:15am  Friday, 21 Feb 2020 || 
   
শিরোনাম



দিনাজপুরে ব্যস্ত ফুল চাষী ও দোকানিরা
১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২৯ মাঘ ১৪২৬, ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪১



বিশেষ প্রতিবেদক,দিনাজপুর থেকেঃ  বিশ্ব ভালোবাসা দিবস,বসন্ত বরণ ও আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস ঘিরে ব্যস্ত  সময় পার করছে উত্তরের শষ্য ভান্ডার দিনাজপুরে ফুল চাষীরা। কয়েক বছর ধরে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এ অ লে ফুল চাষ। ফুল চাষ করে ঘুরছে এ জেলার অসংখ্য কৃষকের ভাগ্যের চাকা। জেলায় প্রচুর ফুল পাওয়া যাচ্ছে। ফুল চাষ বৃদ্ধি পাওয়ায় কয়েকটি গ্রাম এখন ফুলের গ্রাম হিসেবে পরিচিত পেয়েছেন। নতুন বছরে ফুল ভালো বিক্রি হওয়ায় বিশ্ব ভালোবাসা দিবস,বসন্ত বরণ ও আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস ঘিরে দোকনিরা ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে।
দিনাজপুরের  অসংখ্য কৃষক এখন বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষে ঝুকে পড়েছেন। ফুল আবাদ করে কৃষকরা অধিক লাভের মুখ দেখছেন। বিরলের রবিপুর এলাকার ফুলচাষী শমশের জানান,তিনি ৮ শতাংশ জমিতে পরীক্ষামূলক ফুলচাষ করেন। ফুলের ভালো ফলন হওয়ায় তিনি বেশ লাভবান তাতে। তিনি আগামীতে এক বিঘা জমিতে ফুলচাষের প্রস্তুস্তি নিচ্ছেন।এলাকার মোকাররম হোসেন ও মকছেদ আলীর ভাগ্য বদলে দিয়েছে ফুল। অন্যের জমি ইজারা নিয়ে ফুল চাষ করেছেন তারা। সেই ফুল বাগান থেকে তারা বছরে আয় করছেন দুই লাখ টাকা। মকছেদ আলী’র বর্তমানে এক বিঘা ৮ শতাংশ জমিতে রজনীগন্ধা, গোলাপ, গাঁধা ও গাজরা ফুল চাষ করছেন। বাড়ির পাশে ৯ শতাংশ জমিতে রয়েছে গাজরা ফুল। এছাড়া মোকাররমের  এক বিঘা ৫ শতাংশ কাঠা জমিতে রয়েছে গোলাপ, রজনীগন্ধা ও গাঁধা ফুল।
মকছেন বলেন, ফুল চাষে লোকসানের সম্ভাবনা নেই। ঠিকমত পরিচর্যা ও চাষ করতে পারলে প্রচুর লাভ হয়।
ফুলের বাজার দর কম-বেশি হয় জানিয়ে মোকাররম বলেন, ‘প্রতি পিচ গোলাপ বিক্রি করি ৫ টাকা, রজনীগন্ধা ৬ টাকা ও গাঁধা ফুল ১ হাজার ১৫০ টাকা। প্রতিদিন বিক্রি করা দামের তারতম্য ঘটে। বিশেষ দিনগুলোতে ফুলের দাম বেশি হয়।’
ফুলচাষী ইসাহাক আলী জানান,‘তাদের অর্থনৈতিক অবস্থা খুবই খারাপ ছিল। তবে ফুলের ব্যবসা করে বর্তমানে অবস্থা ভালো। গাদা,গাজরা,গোলাপ,রজনী গন্ধা,বেলী ও কাঠ বিড়ালীসহ বিভিন্ন প্রকার ফুল আবাদ হচ্ছে এ জেলায়। ফুল ফোঁটার বন্ধ মৌসুম অর্থাৎ অসময়েও জেলায় প্রচুর ফুল পাওয়া যায়। প্রতিদিন ফুল কেনার জন্য বিভিন্ন স্থান থেকে পাইকাররা এসে নগদ টাকায় জমি থেকে ফুল কিনে নিয়ে যায়। ফুলের ব্যাপক চাহিদা থাকায় এবং লাভ জনক ফসল হওয়ায় অনেক শিক্ষিত বেকার যুবকও ফুল চাষে ঝুকছেন। জমি ফেলে না রেখে ফুল চাষ করছেন তারা। ফুল তোলা আর মালা গাথার কাজেও জড়িয়ে পড়েছেন অনেকে। বিশেষ করে সংসারের কাজ ও পড়া-লোখার  অবসরে নারীরা ফুলের মালা তৈরী’র কাজ করে বাড়তি আয় করছেন।
জেলা সদর,বিরল,কাহারোল,বীরগঞ্জ,চিরিরবন্দর ও নবাবগঞ্জ উপজেলায় ৫০ একর জমিতে বাণিজ্যিকভাবে ফুলের চাষ হচ্ছে।  উৎপাদিত এসব  ফুল এ অ লের চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে রপ্তানি হচ্ছে। নতুন বছরে ফুল ভালো বিক্রি হওয়ায় ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ফুলচাষি ও দোকনিরা ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে।ফুল চাষ বৃদ্ধি পাওয়ায় কয়েকটি গ্রাম এখন ফুলের গ্রাম হিসেবে পরিচিত পেয়েছেন।
দিনাজপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো,তৌহিদুল ইকবাল জানান,এ অ লের মাটি ও আবহাওয়া ফুল চাষের জন্য দারুন উপযোগী। তাই ফুল চাষ সম্প্রসারণে কৃষকদের সহযোগিতা ও পরামর্শ দিয়ে আসছে কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ।
ধানের জেলা দিনাজপুরে বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষ হচ্ছে।  এ  ফুল চাষ করে ঘুরছে অনেক কৃষকের ভাগ্যের চাকা। সংশ্লিষ্ট বিভাগের সহযোগিতা অব্যাহত থাকলে এবং এ ফুলের ভালো দাম পেলে এ অ লে ফুল চাষের পরিধি আরও বেড়ে যাবে এমনটাই মন্তব্য করেছেন কৃষিবিদরা।


শাহ্ আলম শাহী

দিনাজপুর

এই নিউজ মোট   59    বার পড়া হয়েছে


কৃষি



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.