05:59pm  Tuesday, 14 Jul 2020 || 
   
শিরোনাম
 »  ভিশন ২০৩০ ঘোষণার সময় থেকেই বিএনপি পরিবর্তনের রাজনীতি শুরু করেছে      »  পোশাক শ্রমিকদের মজুরি ও ঈদ বোনাস নিয়ে সরকারের দিকে তাকিয়ে উদ্যোক্তারা     »  করোনা সংক্রমণরোধে ঈদ-উল-আযহায় সীমিত পরিসরে কোরবানীর পশুর হাট      »  শিল্প ও গণমাধ্যম দু'টি ক্ষেত্রেই অপূরণীয় ক্ষতি হলো নুরুল ইসলাম বাবুলের মৃত্যু      »  রাশিয়ার করোনা ভ্যাকসিন মানবদেহে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সফল     »  চিকিৎসায় উচ্চশিক্ষা নিশ্চিত করতে খুলনায় হচ্ছে শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়      »  গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হলো রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদের বিরুদ্ধে      »  ডা. সাবরিনা ও আরিফুলেসহ তাদের স্বার্থ সংশ্লিস্টষ্ট সকল ব্যাংক হিসাব জব্দ     »  বাংলাদেশি 'ডন' দুবাই আন্ডারওয়ার্ল্ডে; অডিও-ভিডিওসহ সিআইডির হাতে গ্রেপ্তার     »  ঈদুল আজহার সময় যাঁর যেখানে কর্মস্থল, সেখানে থাকতে হবে।    



করোনা পরিস্থিতি অনুকূলে আসার ১৫ দিন পর এইচএসসি পরীক্ষা
২৭ জুন ২০২০, শনিবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৭, ৫ জিলকদ ১৪৪১



এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়সংখ্যা কমানো এবং কম সময়ে নেওয়ার চিন্তাভাবনা চলছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। শনিবার শিক্ষা সাংবাদিকদের সংগঠন এডুকেশন রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ (ইরাব) আয়োজিত ‘করোনাকালে শিক্ষায় চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণে করনীয়’ শীর্ষক ভার্চুয়াল সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিভিন্ন পরিকল্পনার কথা জানান মন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, চলতি বছরের এইচএসসির সিলেবাস কমানোর কোনও যৌক্তিকতা নেই। কারণ তারা তো তাদের সিলেবাস সম্পন্ন করেছে। তবে এবারের এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়সংখ্যা কমানো এবং কম সময়ে নেওয়ার চিন্তাভাবনা চলছে। করোনা পরিস্থিতি অনুকূলে আসার ১৫ দিন পর এই পরীক্ষা নেওয়া হবে। এই ১৫ দিন শিক্ষার্থীদের নোটিশ দিতে হবে। তাদের প্রস্তুতি ঝালিয়ে নিতে সময় দিতে হবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, করোনার এই সময়ে কোটি কোটি শিক্ষার্থীকে আমরা স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে ফেলতে পারি না। তাই এই মুহূর্তে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার কোনও সম্ভাবনা নেই। চলতি শিক্ষাবর্ষে সংক্ষিপ্ততম যতটুকু সিলেবাস হলে শিক্ষার্থীরা ভালোভাবে শিখে পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত হতে পারে, তা পড়ানোর ব্যাপারে চিন্তাভাবনা চলছে। চলতি শিক্ষাবর্ষ আগামী ফেব্রুয়ারি-মার্চ পর্যন্ত বাড়ানো যায় কীনা তা আমাদের পরিকল্পনায় রয়েছে। চলতি শিক্ষাবর্ষ বাড়লে আগামী শিক্ষাবর্ষ নয়-দশ মাসে শেষ করার কথা ভাবা হচ্ছে। এক্ষেত্রে সব ধরনের ঐচ্ছিক ছুটি কমিয়ে আনা হবে। তবে নানা পরিকল্পনা ও আলোচনা চললেও সিদ্ধান্ত এখনই দেওয়া যাচ্ছে না।

তিনি বলেন, টেলিভিশনে প্রচারিত ক্লাস সরাসরি ও তথ্যপ্রযুক্তির নানা মাধ্যমে ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থী কোনও না কোনোভাবে দেখছে। শিগগিরই টোল ফ্রি লাইন ৩৩৩৬ চালু হচ্ছে। কমমূল্যে বা বিনামূল্যে কিভাবে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেট দেওয়া যায় সেজন্য আমরা বিভিন্ন ফোন কোম্পানির সঙ্গে কথা বলছি।

মন্ত্রী বলেন, যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আগামী কয়েকমাস চলার সামর্থ্য আছে তাদের উচিত সর্বোচ্চ ছাড় দেওয়া। তারা কিস্তিতে ফি নিতে পারেন আবার না নেওয়ারও চিন্তা করতে পারেন। আর যেসব অভিভাবকদের সামর্থ্য রয়েছে তাদের উচিত টিউশন ফি দিয়ে দেওয়া। কারণ ফি না পেলে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ কিভাবে শিক্ষকদের বেতন দিবেন। প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ ও অভিভাবক উভয়কেই ছাড় দিতে হবে। করোনার এই সময়ে উভয়কেই আরও মানবিক হতে হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, করোনায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আইসিটি ব্যবহারের গতি বেড়েছে। তবে করোনা পরবর্তী সময়ের জন্য আমাদের বেশকিছু পরিকল্পনা রয়েছে। আগে এক বেঞ্চে চার-পাঁচজন শিক্ষার্থী বসতো। সেটা হয়তো আপাতত সম্ভব হবে না, বিকল্প কোনও ব্যবস্থা করতে হবে। বছরে শুধু ১০০ দিনের বেশি সরকারি ছুটিই থাকে, তা রিভিউ করা হবে। এজন্য শিক্ষার্থীর পরবর্তী ক্লাসে উন্নীতের জন্য যা পড়ানো দরকার বা যেসব পরীক্ষাগুলো প্রয়োজন সেগুলো নেওয়া হবে।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, গণস্বাক্ষরতা অভিযানের নির্বাহী পরিচালক রাশেদা কে চৌধুরী, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমিরেটাস অধ্যাপক ড. মনজুর আহমদ এবং ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী অধ্যাপক ড. ফারহানা খানম।

ইরাব সভাপতি মুসতাক আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রিপোর্টার নিজামুল হক। ইরাবের কার্যনির্বাহী সদস্য সাব্বির নেওয়াজের সঞ্চালনায় সেমিনারের ধারনাপত্র উপস্থাপন করেন সংগঠনের কোষাধ্যক্ষ শরীফুল আলম সুমন।

এছাড়া সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন ইরাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসাইন, সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক রিপোর্টার মীর মোহাম্মদ জসীম, ইরাবের প্রচার সম্পাদক এম এইচ রবিন, দ্য ডেইলি স্টারের রিপোর্টার মহিউদ্দন জুয়েল, ইরাব সদস্য তানিয়া আক্তার প্রমুখ।

গোবিন্দগঞ্জ পৌর কাউন্সিলর ও যুবলীগ নেতার ব্যাক্তিগত উদ্যোগে মশক নিধণ অভিযানের উদ্বোধন


এই নিউজ মোট   187    বার পড়া হয়েছে


শিক্ষা



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.