11:32pm  Monday, 03 Aug 2020 || 
   
শিরোনাম
 »  বাংলাদেশে ধর্ম যার যার উৎসব কিন্তু সবার: তথ্যমন্ত্রী     »  সেনা কর্মকর্তার অকাল মৃত্যুতে তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল      »  পূর্ণ সামরিক মর্যাদায় মেজর (অব.) সিনহা বনানী চিরনিদ্রায় শায়িত      »  করোনার বিস্তার রোধে চলাচলে নিয়ন্ত্রণ ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ল     »  বিশেষজ্ঞদের পূর্বাভাস ভুল, করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে      »  বিশেষজ্ঞদের পূর্বাভাস ভুল, করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে      »  দিনাজপুরে করোনায় আরও একজনের মৃত্যুঃ নতুন আক্রান্ত ৪২ জন      »  নিজের নামে নয়, অন্যের নামে ৫০ সিমকার্ড ব্যবহার করেছেন সুশান্ত      »  ইতিহাসে একক মাসে এর আগে কখনো এতো পরিমাণ রেমিট্যান্স আসেনি     »  আর কত মানুষ মরলে ট্রাম্পের শিক্ষা হবে?   



ঈদে ফরিদুল হাসানের একাধিক নাটক
২৯ জুলাই ২০২০, বুধবার, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৭, ৭ জিলহজ ১৪৪১



“আমি বাবা হতে চাই”
লন্ডন প্রবাসী নিঃসন্তান দম্পতি মিতু ও বাবর গ্রামে এসেছে সন্তান দত্তক নিতে। বিয়ের পর তারা হাজার চেষ্টা করে সন্তানের বাবা-মা হতে পারেনি। অবশেষে মিতু ডিসেশান নিয়েছে তারা দেশ থেকে একটা সন্তান দত্তক নিয়ে আবার ফিরে যাবে লন্ডনে। কিন্তু গ্রামে আসার পর মা বলে ভাঞ্জা বউয়ের হাতে আমি কিছু খামুনা, সন্তান দত্তক নেওয়ার দরকার নাই ? বাবরের এমন কি বয়স হয়েছে ? আমি ছেলের দ্বিতীয় বিয়ে করাবো। মায়ের কথা বাবরের মনে ধরে, তারও ইচ্ছে দ্বিতীয় বিয়ে করে নিজ ঔরসের সন্তানের বাবা হবার। কিন্তু দজ্জাল স্ত্রীর ভয়ে দ্বিতীয় বিয়ের ব্যাপারে চুপসে যেতে হয় বেচারাকে। শুরু হয় বউ শাশুড়ির যুদ্ধ।

মা প্রতিবেশী দুর সম্পর্কের আত্মীয় মিজানকে খবর দিয়ে এনে বলে তার ছেলের জন্য একটা মেয়ে জোগাড় করে দিতে। মিজান দুই বাচ্ছার মায়ের কাছে নিয়ে যায় বাবর ও মাকে, দুই বাচ্ছার মা দেখে তারা অবাক ! মিজান যুক্তি দেখায় পয়লা বিবাহে যেহেতু বাচ্ছা হয় নাই, তাহলে বাচ্ছাওলা বউ বিয়ে করালেই বেটার, দুই বাচ্ছা বাবরবে আব্বা আব্বা বলে জড়িয়ে ধরে, বাবর সেখান থেকে পালিয়ে আসে। ঈদের জন্য নির্মিত হলো ৭ পর্বের ধারাবাহিক নাটক “ আমি বাবা হতে চাই’’ নাটকটি রচনা করেছেন আহসান আলমগীর ও পরিচালনা করেছেন ফরিদুল হাসান। এতে অভিনয় করেছেন আ খ ম হাসান, নাদিয়া আফরিন মীম, রাশেদ জামান অপু, ফারজানা রিক্তা, মাহা, সফিক খান দিলু, সাইকা আহমেদ, ফারজানা জয়া, শারমিন র্শমি ও আরো অনেকেই...  প্রযোজনায় করেছেন আনোয়ার আজাদ ফিল্ম, প্রচারিত হবে ঈদের দিন থেকে সাত দিন সন্ধ্যা ৯.৩৫ মিনিটে নাগরিক টেলিভিশনে এবং ব্যাক টু রুট ইউটিউব চ্যানেলে ।

“তিল থেকে তাল”

গল্পে দেখা যায় মোফাক্কর একজন আতঙ্কবাজ। সে তিলকে তাল বানিয়ে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে দিয়ে নানাভাবে মজা লোটে। তিলকে তাল বানানোই তার চরিত্রের মূর্খ ভূষণ। এই তিলকে তাল বানিয়ে গ্রামে নানাভাবে প্রতিনিয়ত নানা হাস্যকর ঘটনার জন্ম দেয়। সে এমন ভাবে ছোট একটা ঘটনাকে বিরাক আকারে উত্থাপন করে, যা গ্রামের মানুষের বিশ্বাস না করে উপায় থাকেনা। শুধু কি গ্রামের মানুষ। তার ঘরের সুন্দরী বউকেও সে ছাড় দেয়নি। তার শ্বশুর বাড়ীর একজন লোক রোড এক্সিডেন্টে মারা যায়, সে তার বউয়ের কাছে ছুটে এসে বলে রোড এক্সিডেন্টে তার বাপ মারা গেছে। এ শুনে মোফাক্করের বউ কাঁদতে-কাঁদতে তার বাপের বাড়ীতে ছুটে এসে দেখে তার বাপ জিবীত ও সুস্থ্য। পরে বাড়ী ফিরে এসে মোফাক্করকে ইচ্ছামত ধোলাই করে। এরপর থেকে মোফাক্করের বউ তিলকে তাল বানানো নিয়ে নানাভাবে প্রতিবাদ করতে আসে। কিন্তু তাতেও মোফাক্করের স্বভাব চরিত্রের কোন পরিবর্তন হয় না। মূল গল্পে দেখা যায়, গ্রামে দরিব আলীর মেয়ে সুইটির সঙ্গে পূর্ভে মোফাক্করের বিবাহের কথা ছিল, কিন্তু মোফাক্করের আতঙ্কবাজ দেখে দবির আলী তার সাথে সুইটির বিয়ে দেয় না। ভিন গ্রামের বক্কর নামের একটা ছেলের সাথে সুইটির বিয়ে দিয়ে ঘরজামাই করে রেখেছেন। মোফাক্কর এবার এখানে তিলকে তাল বানানো শুরু করে। সে নববিবাহীতা সুইটির স্বামীকে ডেকে বলে সুইটির সাথে আগে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সুইটির সাথে তার বিয়েরও কথা ছিল। সুইটির চরিত্র ভাল না দেখে সে সুইটিকে বিয়ে করেনি। গোপনে সুইটির সাথে তার অনেক কিছু ঘটেছে যা ভাষায় প্রকাশ করার মত না। এশুনে বক্কর এবার তেলে বেগুনে জ্বলে ওঠে। এবার মোফাক্কর তার ভুল বুঝতে পারে, সে অনুতপ্ত হয়ে সবার কাছে ক্ষমা চায়। আর কোনদিন সে এভাবে তিলকে তাল বানাবে না। আজ তার চরম শিক্ষা হয়েছে। এভাবেই নাটকটির পরিসমাপ্তি হয়। ঈদের জন্য নির্মিত হলো ৭ পর্বের ধারাবাহিক নাটক “ তিল থেকে তাল’’ নাটকটি রচনা করেছেন রুহল আমিন পথিক ও পরিচালনা করেছেন ফরিদুল হাসান। এতে অভিনয় করেছেন আ খ ম হাসান, হুমাইয়ার হিমু, জামিল হোসাইন, প্রকৃতি, বিনয় ভদ্র, সফিক খান দিলু, শম্পা নিজাম ও আরো অনেকেই...  প্রযোজনায় করেছেন আনোয়ার আজাদ, প্রচারিত হবে আনোয়ার আজাদ ফিল্ম ইউটিউব চ্যানেলে ।

“সুন্দরী বাঈদানী”
কুসুমপুর গ্রামের নদীতে একটা বেদে বহর আসে। রঙগন সর্দারের দল। তারা গ্রামের মানুষদের নানান রকম চিকিৎসার সাথে সাথে তাবিজ বিক্রি করে, সিঙ্গা লাগায় এবং সাপের খেলাভ দেখায়। বেদে বহরের এক সুন্দরী তরুণীর নাম রূপসী। রূপসীর বয়স উনিশ, বাবা মা নেই। নানীর সাথে বেদে বহরে থাকে। রূপসীকে পছন্দ করে বেদে বহরের যুবক জুলহাস। কিন্তু জুলহাসের স্বভাব চরিত্র ভাল না। ইতিমধ্যে দুটো বিয়ে করেছে সে। রূপসীকে বিয়ে করার জন্য ওর নানীর কাছে প্রস্তাব দেয়। কিন্তু রূপসীর নানীও ওর কাছে আদরের নাতীকে বিয়ে দিতে রাজী না। জুলহাস হুমকী দেয় সে যে করেই হোক রূপসীকে বিয়ে করবে। মোবারক গ্রামের সৎ স্কুল মাষ্টার। অবিবাহীত। স্বভাব চরিত্রে খুবই খুতখুতে। তার সূচীবায়ূ আছে সেই সাথে রগচটাও। যখনই কোন অন্যায় দেখে তখনই প্রচন্ড রেগে যায়। বিয়ের জন্য তার পরিবার হন্যে হয়ে পাত্রী খুজলেও মোবারক কোন মেয়েকেই পছন্দ না। একবার মেয়ে পছন্দত হলে মেয়ের পরিবার পছন্দ হয় না, আবার মেয়ের পরিবার পছন্দ হলে মেয়ে পছন্দ হয় না। তার উদ্দেশ্য পরিস্কার, সততা যেখানে নেই সেখানে সে সম্পর্ক করবে না। মুলত এই কারণেই তার বিয়ে করা হচ্ছে না। ঈদের জন্য নির্মিত হলো ৭ পর্বের ধারাবাহিক নাটক “সুন্দরী বাঈদানী’’ টিপু আলম মিলনের  গল্পে নাটকটি নাট্যরূপ করেছেন জাকির হোসেন উজ্জ্বল ও পরিচালনা করেছেন ফরিদুল হাসান। এতে অভিনয় করেছেন আ খ ম হাসান, নাজিরা মৌ, জামিল হোসাইন, মিলন ভট্র, অলিউল হক রুমি, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু ও আরো অনেকেই...  প্রযোজনায় করেছেন মিড এন্টারপ্রইজ, প্রচারিত হবে ঈদের দিন থেকে সাত দিন রাত ১১.০৫মিনিটে বৈশাখী টিভিতে।

বিগ বস, রচনা : বরজাহান হোসেন, পরিচালনা : ফরিদুল হাসান
মূলত ব্যবসাটা তাদের বাটপারী করা। জাবেদ,তামিম,ঝিলিক ও পপি। সম্পর্কে বন্ধু তারা চারজন। তাদের স্বপ্ন হচ্ছে যেভাবেই হোক কোটিপতি হতে হবে আর সেটা ন্যায়ের চেয়ে অন্যায় পথে দ্রæত সম্ভব। এই চিন্তা থেকেই রাস্তা থেকে একটা মেয়েকে কিডনাফ করে বিশ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবি করে কিন্তু কৌশলে মেয়েটি পালিয়ে গিয়ে তাদের ফাঁসিয়ে দেয়। নিজেদের বাঁচাতে চারজন চলে যায় কক্সবাজার। আগে থেকেই অবৈধ ইয়াবার ব্যবসার সাথেও জড়িত ছিলো তারা। খবর আসে ইয়াবার চালান ধরা পড়েছে। আতংকিত চারজন। ঠিক তখন তারা কক্সবাজারে অবস্থান করছে।

কক্সবাজারের রির্সোটে ঘটনাক্রমে একদিন পরিচয় হয় বিগবস ফিরোজ শাহ এর সাথে।
পোশাক-আশাকে যেমন দাম্ভিকতা রয়েছে তেমনি কথাবার্তায় রয়েছে আরো তিনগুন অভিজ্যাতের ছাপ। কোটি পতি ফিরোজ শাহ। হোটেলের পাটিতে সুন্দরী সৌনিয়ার সাথে নাচতে গিয়ে আনন্দে টাকা উড়ায় লোকটি। সে রাত থেকেই এদের চারজনের নজরে পড়ে যায় ফিরোজ শাহ। পরিচিত হবার পর জানতে পারে তারা চারজন যে হোটেলে উঠেছে ঠিক পাশের হোটেলে অবস্থান করছে ফিরোজ শাহ।

সুন্দরী সৌনিয়ার সাথেও তাদের পরিচয় হয়। সৌনিয়া পরিচয় দেয় বিভিন্ন হোটেলের পাটিতে নাচ করে সে। মাঝে মধ্যে কক্সবাজার আসা হয় তার। তবে ফিরোজ শাহ তার পরিচিত এটা গোপন করে সৌনিয়া। তাদের চারজনের সাথে আলাপ পরিচয়ের সময় ফিরোজ শাহ জানায় কক্সবাজারে ভালো কোন ব্যবসার লাইন পেলে একশো কোটি টাকা ইনভেস্ট করতে চাই সে। মূলত সেটার জন্যই তার কক্সবাজারে আসা। আকাশ থেকে পড়ে ফিরোজ শাহর কথা শুনে তামিম, জাবেদ, ঝিলিক, পপি এরা চার। ঈদের জন্য নির্মিত হলো ৭ পর্বের ধারাবাহিক নাটক “বিগ বস’’ন াটকটি রচনা করেছেন বরজাহান হোসেন ও পরিচালনা করেছেন ফরিদুল হাসান। এতে অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসান, নাদিয়া আহমেদ, সাজু খাদেম, আরফান আহমেদ, ফারজানা রিক্ত, আইরিন তানি, ইমু শিকদার ও আরো অনেকেই...  প্রযোজনায় করেছেন এস কে আজাদ।

“প্লিজ মাফ করবেন’”

আব্দুর রহিম খান ওরফে এ আর খান ( জাহিদ হাসান ) এবং স্ত্রী মৃদুলা (নাদিয়া আহম্মেদ) তিন দিনের জন্য এই নব দম্পত্তি হানিমুন করতে আসে কক্্রবাজার। তারা একটি অভিজাত হোটেল কক্ষে উঠে। এ আর খান একটু চাপাবাজ এবং সন্দেহ প্রবন লোক আর যখন তখন যেখানে সেখানে বিকট শব্দ করে হাঁচি মারা তার মুদ্রা দোষ। এমন কি খাবার টেবিলে বসে হাঁচি মারতেও তিনি কুন্ঠাবোধ করেন না। এবং এই হাঁচি রোগ নিয়ে তিনি গর্ব বোধ করেন। তার এই হাঁচি রোগ এবং চাপাবাজি  নিয়ে মৃদুলা প্রায়ই বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পরতে থাকেন। এদিকে কক্সবাজার একা বেড়াতে আসেন ভার্সিটি পড়–য়া সুবর্না (আইরিন তানি)। হোটেল করিডোরে পরিচয় হয় মৃদুলাুুর সাথে। নাম ও নাম্বার বিনিময় হয়। এ আর খানের পাশে শুয়ে আছে মৃদুলা। এমন সময় তার মুুখের উপর বিকট শব্দে হাঁচি মারে এ আর খান। নাকের ময়লা ছিটকে পরে তার চোখে মুখে। এ নিয়ে শুরু হয় তুমুল ঝগড়া। মৃদুলা তাকে ডাক্তার দেখাতে বললেই এটি তার খান বংশের ঐতিহ্য বলে জানায়। ক্ষেপে যায় মৃদুলা পাশের কক্ষে উঠা গবেষণায় ব্যস্ত বিশিষ্ট কাঁকড়াবিদ রাতুল চৌধুরী ( আরফান আহমেদ ) ডিস্টার্ব ফিল করেন। এক পর্যায়ে বিরক্ত হয়ে তিনি প্লিজ মাফ করবেন’ বলে তাদের ঝগড়ায় ইন্টারআপ করেন। এতে ঘটে আরেক হাস্যকর বিপত্তি। পরদিন সীবিচে আনমনে হাটছেন সুবর্না। হঠাৎ দেখেন ম্যাগনেফায়িং গøাস নিয়ে রাতুল লাল কাঁকড়া পরীক্ষা নিরীক্ষা করছেন আর খাতায় নোট করছেন। সুবর্না কাছে এগিয়ে যায়। তাকে দেখে রাতুলের ভালো লেগে যায়। এক পর্যায়ে তার সহকারী হিসাবে চাকরির জন্য সুবর্নাকে প্রস্তাব দেয়। তিনি না বলার পরও নাছোড়বান্ধা রাতুল ফোন নম্বর চায়। তখন সুবর্না ইচ্ছে করেই মৃদুলার নাম ও নম্বর নিজের বলে চালিয়ে দেয়।

মাঝ রাতে মৃদুলার ফোনে আননোন নাম্বারের কল আসে। সন্দেহ হয় এ আর খানের। । এরকম নানা হাস্যকর ঘটানার মধ্য দিয়েই যবনিকা ঘটে - প্লিজ মাফ করবেন’ নাটকের।  রচনা করেছেন, সিফ্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্র্রাত মোশাররফ ও পরিচালনা করেছেন, ফরিদুল হাসান এতে । এতে অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসান, নাদিয়া আহমেদ, আরফান আহমেদ, আইরিন তানি আরো অনেকেই...  প্রযোজনায় করেছেন এস কে আজাদ।

ঈদুল আজহার টেলিমুভি “জলে কুমির ডাঙ্গায় বাঘ”




এই নিউজ মোট   37    বার পড়া হয়েছে


টেলিভিশন



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.