10:13am  Monday, 18 Nov 2019 || 
   
শিরোনাম
 »  ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মওলানা ভাসানীর ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত     »  দৃষ্টি কাড়তে আমির-কন্যার ফটোশুট     »  প্রথম পুরস্কার দুই কেজি দেশি, দ্বিতীয় দুই কেজি ভারতীয়, তৃতীয় দুই কেজি পাকিস্তানি পিয়াজ!     »  দিনাজপুরে বাজারে নতুন পাতা পিয়াজ     »  ধেয়ে আসছে বুলবুলের চেয়ে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় নাকরি     »  আমাকে নির্যাতন করা হয়েছে খেতেও দেওয়া হত না     »  অফিসে বসে বাবা দেখছিলেন- অমানবিক? লোমহর্ষক? বীভৎস নির্যাতন?     »  সাবিলা নূর মধুচন্দ্রিমায় সময় কাটাচ্ছেন!     »  ১০ বছর বয়সী খেলার সঙ্গী পাঁচ বছরের শিশুকে গলা কেটে হত্যা     »  নতুন পরিবহন আইনের উদ্দেশ্য সড়কে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা, জরিমানা নয়!   



নারী আইনজীবী দ্বিতীয় স্বামীর নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন



ভুক্তভোগী নারী জানান, প্রথম স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর একমাত্র ছেলেকে নিয়ে থাকতেন তিনি। ছেলে বর্তমানে উচ্চ মাধ্যমিকে পড়ে। কিছুদিন আগে মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলার শাওনের সঙ্গে পরিচয় হয় তার। শাওন নিজেকে ব্যবসায়ী পরিচয় দিতেন। ঢাকায় অফিস এবং ফ্ল্যাট থাকার কথাও বলতেন। চলাফেরা করতেন ব্যক্তিগত গাড়িতে। কথাবার্তা, আচার আচরণ দেখে ধীরে ধীরে তাদের সম্পর্ক গভীর হয়। শাওন এক পর্যায়ে বিয়ের তাকে প্রস্তাব দেন। কিছুটা দ্বিধা থাকলেও শাওনের পরে রাজি হন তিনি। গত ৯ সেপ্টেম্বর কাজীর মাধ্যমে তাদের বিয়ে হয়। তবে শাওনের কথামতো বিয়ের কথা পরিবারের কাছে গোপন রাখেন ওই নারী।

‘টাকার জন্য প্রতিদিন আমাকে মারধর করত। সমস্ত শরীর থেঁতলে দিয়েছে পাথরের আঘাতে। আমার বিবস্ত্র ছবি-ভিডিও রেকর্ডিং করে হুমকি দিত ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার। নির্যাতন সইতে না পেরে আত্মহত্যার কথাও চিন্তা করেছি। পালিয়ে আসতে পারব তা ভাবতেও পারিনি।’ এভাবেই স্বামীর নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন মানিকগঞ্জ বারের এক নারী আইনজীবী।


স্বামীর কাছ থেকে পালিয়ে এসে গতকাল সোমবার রাতে ওই নারী আশ্রয় নেন মানিকগঞ্জ সদর থানায়।

ওই নারী আইনজীবী জানান, গত ১৭ অক্টোবর হঠাৎ করে শাওন এসে জরুরি কথা আছে বলে কোর্ট থেকে তাকে ডেকে নেয়। ব্যক্তিগত গাড়িতে উঠিয়ে সাভারের নবীনগর কহিনুর গেটের তুনু হাজীর ছয়তলা বাড়ির চারতলার একটি কক্ষে তাকে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রতিবেশীদের কাছে ওই নারীকে স্ত্রী হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেন শাওন। প্রথম দুদিন ভালো ব্যবহার করলেও তৃতীয় দিন থেকে নিজের আসল রূপ দেখান শাওন।

ভুক্তভোগী ওই নারী আইনজীবী জানান, মারধরের ভয় দেখিয়ে মানিকগঞ্জ ডাকঘরে তার কয়েকটি সঞ্চয় হিসেব থেকে তাকে টাকা উঠিয়ে দিতে বলেন শাওন। বাধ্য হয়ে তিন দফায় ১৪ লাখ টাকা শাওনের হাতে তুলে দেন তিনি। কিন্তু আরও টাকা দেওয়ার জন্য চাপ দিতে থাকেন শাওন। আর কোনো টাকা না থাকার কথা বললে ওই নারীর নামে থাকা জমি লিখে দিতে বলেন শাওন। রাজি না হওয়ায় শুরু হয় নির্যাতন। তার কাছ থেকে মুঠোফোন, জাতীয় পরিচয়পত্র কেড়ে নেন তিনি। নগ্ন করে ভিডিও ধারণ করে তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকিও দেন শাওন। সারা দিন একটি ঘরে আটকে রেখে মারধর করতে থাকেন।

ভুক্তভোগী নারী জানান, শিলপাটার পাথর দিয়ে তার মুখমণ্ডলসহ সারা শরীর থেঁতলে দেওয়া হয়েছে। সর্বশেষ গত ২ নভেম্বর রাতেও তাকে নির্যাতন শুরু করেন শাওন। তার চিৎকারে পাশের ফ্ল্যাটের লোকজন এসে তাকে রক্ষা করেন। এক পর্যায়ে তারা তাকে নিজেদের ফ্ল্যাটে নিয়ে যান এবং আত্মীয়-স্বজনকে ছাড়া তাকে দেওয়া হবে না বলে শাওনকে জানিয়ে দেন। কিন্তু পরে শাওন তাদের বুঝিয়ে ভুক্তভোগী নারীকে বাড়িতে নিয়ে যাওয়া কথা বলে ওই বাড়ি থেকে বের করে আনেন। তবে বাড়িতে না নিয়ে তাকে ঢাকার একটি হাসাপাতালে নিয়ে যান (ল্যাবএইড) শাওন। সেখানে শাওনের অবস্থা দেখে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পুলিশকে খবর দেয়। বিষয়টি বুঝতে পেরে শাওন সেখান থেকে সটকে পড়েন।

ওই নারী জানান, হাসপাতাল থেকে তার পরিচিত ঢাকা বারের একজন আইনজীবীকে পরিস্থিতি জানিয়ে ফোন করেন। তিনি এসে তাকে হাসপাতাল থেকে নিয়ে যান। পরে তিনি উত্তরায় পরিচিত একজনের বাড়িতে আশ্রয় নেন। কিছুটা সুস্থ হওয়ার পর সোমবার রাতে তিনি মানিকগঞ্জ সদর থানায় এসে আশ্রয় নেন।

ওই নারী বলেন, ‘এখন বুঝতে পারছি শাওন আমার টাকা-পয়সা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য পরিকল্পনা করে নেমেছিল। আমার টাকা-পয়সা কোথায় আছে, কী পরিমাণ জমি আছে, আমার পারিবারিক অবস্থা সব খবর সে সংগ্রহ করেছিল। সরল মনে তাকে বিশ্বাস করেছিলাম আমি।’

এদিকে, মেয়ে নিখোঁজ থাকায় ওই নারীর বাবা মো. সফিউদ্দিন গত ৩ নভেম্বর মেয়েকে অপহরণের অভিযোগে দুই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলায় তিনি অভিযোগ করেন, মুঠোফোনে অপহরণকারীরা পাঁচ লাখ টাকা দাবি করেন। টাকা না দিলে তার মেয়েকে হত্যার হুমকিও দিয়েছেন তারা।

এ বিষয়ে জানতে মানিকগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হানিফ সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘সফিউদ্দিনের দায়ের করা মামলায় ওই নারীকে উদ্ধার দেখানো হয়েছে। আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মৌখিক বক্তব্য রেকর্ডের জন্য তিনি মানিকগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জবানবন্দি দেন।’

তবে ওই নারীকে নির্যাতনের ঘটনায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি। অন্যদিকে অভিযুক্ত মো. শাওন মিয়ার দুটি ফোন নম্বরে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়ে নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়।
এই নিউজ মোট   570    বার পড়া হয়েছে


নারী নির্যাতন



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.