11:13am  Friday, 03 Apr 2020 || 
   
শিরোনাম
 »  করোনার বিস্তাররোধে পুলিশের কর্মকাণ্ডে আমি অত্যন্ত গর্বিত ও সম্মানিত বোধ করছি     »  করোনা মোকাবেলা সরকারকে সত্যটা বলতে হবে, নতুবা আসবে ১৯১৮'র মহামারি     »  ত্রাণ নিতে গিয়ে হিজড়া সম্প্রদায় দিয়ে দেখিয়ে দিল শৃঙ্খলা কাকে বলে      »  বাংলাদেশের ইশরাত করিম ও রাবা খান ফোর্বসের তালিকায়      »  ৩ এপ্রিল চ্যানেল আইতে যা দেখবেন      »  কর্মহীন মানুষদের খাদ্যসামগ্রী দিচ্ছে গাইবান্ধার এসএসসি ০২ ব্যাচ      »  বিরামপুরে জ্বর-শ্বাসকষ্টে মারা যাওয়া ফরহাদ হোসেন করোনা আক্রান্ত ছিলেন না      »  ভোলাহাটে ইউএনও সেনাবাহিনী পুলিশের ব্যাপক টহল     »  শিবগঞ্জে দু:স্ত অসহায়দের পাশে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন “এসো মানুষের পাশে”     »  শিবগঞ্জে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে গণজমায়েত এড়াতে প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর অভিযান    



শিবগঞ্জের এক এস আইয়ের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ তুলে ফেসবুকে স্ট্যাটাস



শিবগঞ্জ সংবাদদাতা: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক আইডিতে শিবগঞ্জ থানার এক সাবইন্সপেক্টরের বিরুদ্ধে নির্যাতনের চিত্র  তুলে ধরেছেনতার স্ত্রী । শাহনাজ পারভিন ২৬ মার্চ সন্ধ্যা ৬টা ১৬ মিনিটে নিজস্ব ফেসবুক আইডিতে তার তিনটি ছবি পোষ্ট করে তাতে ক্যাপশন লিখেন, আর কত আমিও মানুষ আজ ১৪ দিন থেকে সইতেছিলাম। এর আগেও চুপ ছিলাম এবার চুপ থাকতে চেয়েছিলাম কিন্তু আর না। কারন কুকুর কোন দিন ভাল হয়না। পুলিশের চাকুরি করে। বে আইনি কাজ করে। আর সইতে পারবোনা। ওর বোনের বা ভাই বা ওকে কেউ এমন করলে কি করত? 

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ থানায় কর্মরত এসআই তৌহিদুল ইসলাম। তিনি বাগমারা উপজেলার মৃত সাহেব আলীর ছেলে। প্রায় ৬ বছর আগে ১০ লাখ টাকা যৌতুক নিয়ে বিয়ে করেন একই উপজেলার আপন খালাতো বোন শাহনাজ পারভিন কে। বিয়ের কিছু দিন পর হতে সংসারে তৈরি হয় কলহ। এননিয়ে মারধর করা হয় স্ত্রীকে।

এর পর বিচার চেয়ে যোগাযোগ করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের গনমাধ্যম কর্মীদের কাছে। শাহনাজ পারভিন শুক্রবার দুপুরে সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, আমাকে দেখতে এসেই বিয়ে করেন খালাতো ভাই তৌহিদুল ইসলাম। এর কিছু দিন পর যৌতুক হিসেবে ১০ লাখ টাকা দাবি করে আমাদের কাছে। আমার সুখের সংসার টেকাতে সে সময় তাকে নগদ ১০ লাখ টাকা দেয়া হয়। এর পর বগুড়ায় চাকুরির সুবাদে সেখানে গিয়ে আদম দিঘির চাপাপুর গ্রামের রিমা নামের এক নারীকে বিয়ে করেন তৌহিদুল ইসলাম। সে বিয়েতে আমাকে মেনে নিতে চাপ প্রয়োগ করে। আমি তার দ্বিতীয় বিয়ে না মানায় প্রায়ই আমার উপর নির্যাতন চালানো হয়। তার পরেও সাড়ে তিন বছরের একটি বাচ্চা থাকায় নিরবে তার নির্যাতন সহ্য করে গেছি।

তিনি আরও বলেন, সম্প্রতি দ্বিতীয় বউ রিমাকে ঘরে তোলার জন্য আমাকে চাপ দিতে থাকে। এনিয়ে আমি প্রতিবাদ করায় গত ১৪দিন আগে মেরে আমার বাম পা ভেঙে দেয়। এছাড়াও শরীরে বিভিন্নস্থানে আঘাত করা হয়। পরে আমি কোন রকমে শিবগঞ্জ থানার গেটেরে বাসা হতে বের হয়ে একা শিবগঞ্জ হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা করাই। দিন দিন আমার স্বাস্থ্যের অবস্থা অবনতি হওয়ায় বৃহস্পতিবার বাবার বাড়ী বাগমারায় চলে আসি।

তিনি জানান, বিষয়টি শিবগঞ্জ থানার ওসি শামসুল আলম, তদন্ত আতিকুল ইসলাম ও এসআই আনাম কে জানালেও তারা কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেনি। উল্টো তারা আমার স্বামী তৌহিদুলের পক্ষ নিয়েছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে শাহনাজ পারভিন এর স্বামী শিবগঞ্জ থানার এসআই তৌহিদুল ইসলাম বলেন, আমি স্ত্রী শাহনাজ পারভিন কে নির্যাতন করিনি। সিড়ি হতে পড়ে তার পা ভেঙে গেছে। এছাড়া তিনি দ্বিতীয় বিয়ের কথা অস্বীকার করে বলেন, শাহনাজের মাথায় সমস্যা আছে। শরীরে আঘাতের চিহ্ন’র কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ওগুলো ইনজেকশনের দাগ। এলার্জি থাকায় শরীরের বিভিন্নস্থানে দাগ পড়ে গেছে। এছাড়াও তিনি সংবাদিকদের মাধ্যমে সমঝোতার প্রস্তাব দেন।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে শিবগঞ্জ থানার ওসি শামসুল আলম শাহ জানান, তাদের এটি পারিবারিক বিষয়। এবিষয়ে আমার কাছে কেও অভিযোগ দেয়নি।

মোহা: সফিকুল  ইসলাম, শিবগঞ্জ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

এই নিউজ মোট   60    বার পড়া হয়েছে


নারী নির্যাতন



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.