07:21pm  Saturday, 21 Sep 2019 || 
   
শিরোনাম



শিবগঞ্জে শারদীয় দূর্গা পূজায় আনন্দ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে দলিত ও হরিজন পরিবার



শিবগঞ্জ সংবাদদাতা: সামনে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজা উপযাপন নিয়ে  আর্থিক সংকটের কারনে  শিবগঞ্জে  দলিত, হরিজন,ও নি¤œবৃত্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের  ২ হাজার ১শটি  পরিবার হতাশার ভুগছে।এসব পরিবারের মধ্যে কোন উৎসাহ ও আনন্দ নেই। রবিদাস মানবিক উন্নয়ন নামে একটি বেসরকারী সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক শ্রী প্রফুল্ল কুমার  রবিদাসের সহযোগিতায় সরজমিনে  শিবগঞ্জ উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার বিভিন্ন অ লে এ সম্প্রদায়গুলির মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, তাদের পেশাগত কাজ না থাকায় উপার্জন প্রায় বন্ধ হওয়ায় মানবেতর জীবনযাপন করছে। সূত্রমতে হিন্দু সম্প্রদায়ের মোট ভোটার সংখ্যা হলো প্রায় ৩০ হাজার ও লোক সংখ্যা হলো প্রায় ১লাখ ১০ হাজার।তারমধ্যে দলিত, হরিজন ও নি¤œবৃত্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের পরিবারগুলো অসহায় ও নি:স্ব ।একটি  বেসরকারী সংস্থার  জরিপ অনুযায়ী শিবগঞ্জের দলিত, হরিজন ও নি¤œবৃত্ত হিন্দুদের সংখ্যা প্রায় ২হাজার ১শ পরিবার।তার মধ্যে ধোপা ৪ শটি, নাপিত ৪শটি, রবিদাস(মুচি) ৮শটি ,হরিজন( ডোম ও মেথর) ৫০টিও বেদেসহ অন্যান্য আরো ৫০টি পরিবার রয়েছে।মনাকষা ইউনিয়নের চৌকা মনাকষা গ্রামের রবিদাস সম্প্রদায়ের শ্রী দিলীপ রবিদাসের স্ত্রী শ্রীমতি মেনকা রানী বলেন আমার পরিবারে স্বামী বার্ধক্য জনিত কারনে অক্ষম,জমিজমা নেই।নিজে ভিক্ষাবৃত্তি করে ৫সদস্যের পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছি।মাত্র কয়েকদিন পর আমাদের ধর্মের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজা।এ পর্যন্ত পূজা উপলক্ষে কোন নতুন জামা কাপড়, ভাল খাবার সহ পূজার উপকরণ সংগ্রহের জন্য কোন কিছু করতে পারিনি। তাই পূজা আমাদের জন্য আনন্দের না হয়ে দু:খের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।পারচৌকা গ্রামের  নি¤œবৃত্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের শম্ভু মন্ডলের স্ত্রী  শ্রীমতি রানী জানান আমার স্বামী অল্প পুঁজিতে হিন্দু সম্প্রদায়ের মাঝে শঙ্কবালা বিক্রীর ব্যবসা করতো।বর্তমানে পুঁজির অভাবে সেটি বন্ধ হয়ে গেছে।এখন আর্থিক সংকটের কারণে ৭জন সদস্যের পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছি। সামনে পূর্জা নিয়ে ভীষণ চিন্তার মধ্যে আছি। কানসাট ইউনিয়নের পুকুরিয়া গ্রামের বিভীষণ রবিদাস, শিবগঞ্জ পৌরসভার  বাগানটুলী গ্রামের শ্রী  ফড়িং রবিদাস ছত্রাজিতপুর ইউনিয়নের ছত্রাজিতপুর গ্রামের জয়চাঁদ কর্মকার দূর্লভপুর ইউনিয়নের দূর্লভপুর গ্রামের অমল চন্দ্র প্রমানিক,শাহাবাজপুর ইউনিয়নের তেলকুপি গ্রামের অচুর্না রানী, পাকা ইউনিয়নের  দয়াল সাহা, উজিরপুর ইউনিয়নের প্রশান্ত কুমার,বিনোদপুর ইউনিয়নের লছমনপুর গ্রামের সবিতা রানী সহ প্রত্যন্তা লের  দলিত, হরিজন ও নি¤œবৃত্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের শতাধিক লোকের সাথে কথা বলে এই চিত্র পাওয়া গেছে। তাদের  অভিযোগ পূর্বে  পূর্জা উপলক্ষে কোন সহযোগিতা পাননি।তবে দূর্গা মূর্তি তৈরীর ক্ষেত্রে ও মন্দির উন্নয়নের জন্য সরকারের বিভিন্ন দপ্তর ও নেতাগণ অনুদান দিয়ে থাকেন। কিন্তু আমাদের জন্য কোন অনুদান এপর্যন্ত আসেনি। তাদের দাবী পুজা উদযাপনের জন্য আমাদের মত দরিদ্র পরিবারে জন্য পর্যাপ্ত পরিমান অনুদান দেয়া হোক এবং আমাদের জন্য কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হোক। বিডি আর এম এর  শিবগঞ্জ উপজেলার শাখার সভাপতি শ্রী নিবারণ রবিদাস  এ সব পরিবারের হতাশা ও অসাহয়তের কথা স্বীকার  করে বলেন তারা যেন সঠিকভাবে পূজা উদযাপন করতে পারে সেজন্য পর্যাপ্ত পরিমানে অনুদানের জন্য সরকারের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি। হিন্দু ধর্মের উপজেলা পূর্জা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্রী কমল ত্রিবেদী বলেন শিবগঞ্জে প্রায় ৯ হাজার দলিত,হরিজন ও নি¤œবৃত্ত হিন্দু মানবেতর জীবনযাপন করছে। তাদের জন্য শারদীয় দূর্গা পূজা উপলক্ষে সাময়িক ভাবে মোটা অংকের অনুদানের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্যের মাধ্যমে সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করছি।উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা কা ন কুমার দাস বলেন, সমাজ সেবা দপ্তর থেকে এব্যাপারে কোন সহযোগিতা করার সুযোগ নেই।তবে সংখ্যালঘু হিসাবে তাদের অনুদান পাওয়ার অধিকার রয়েছে এবং আমি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি। শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার চৌধূরী রওশন ইসলাম ও শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন, ধর্মীয় উৎসব পালন সাধারণত: নিজ নিজ উদ্যোগে হয়ে থাকে। তিনি আরো বলেন এখন পর্যন্ত দলিত ও হরিজন সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে কেউ কোন লিখিত বা মৌখিকভাবে আবেদন করেনি।তবুও একেবারে অসহায় পরিবারের জন্য আমরা অনুদান দেয়ার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করছি।এব্যাপারে ৪৩ চাঁপাইনবাবগঞ্জ ১শিবগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য ডা: সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল বলেন আওয়ামীলীগ সরকার সংখ্যা লঘুদের সার্বিক উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। তারাই ধারাবাহিকতায় শিবগঞ্জ উপজেলাতে তাদের জন্য বিভিন্ন ধরনের উন্নয়ন কাজ হচ্ছে। তিনি অরো বলেন ধর্ম যার যার, উৎসব সবার।তাই  দলিথ,হরিজন ও নি¤œবৃত্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের অসহায় ও নি:স্ব পরিবার গুলো যেন সঠিক ভাবে তাদের ধর্মের সবচেয়ে বড় উৎসব সঠিকভাবে উদযাপন করে আনন্দ করতে পারে, তার ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
মোহা: সফিকুল ইসলাম, শিবগঞ্জ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

নদীর পানি কমার সাথে সাথে ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে তিস্তা নদীর ভাঙন


এই নিউজ মোট   600    বার পড়া হয়েছে


ওকে নিউজ স্পেশাল



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.