জি এম কাদেরের ওপর দেওয়া ‘অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা’র আদেশ বহাল রেখেছে আদালত

আইন-আদালত প্রচ্ছদ রাজনীতি

দলীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণে জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের ওপর দেওয়া ‘অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা’র আদেশ বহাল রেখেছে আদালত। অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার চেয়ে জি এম কাদেরের করা আবেদন ঢাকার প্রথম যুগ্ম জেলা জজ মাসুদুল হক গতকাল বুধবার খারিজ করে দিয়েছেন। ফলে, বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত জি এম কাদের জাপার সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে যুক্ত থাকতে পারছেন না।

দল থেকে বহিষ্কৃত সাবেক সংসদ সদস্য জিয়াউল হক মৃধার একটি মামলায় গত ৩১ অক্টোবর দলীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণে আদালত এই অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা দেয়। নিষেধাজ্ঞার কারণে গত ১ নভেম্বর থেকে কার্যত দলীয় কার্যক্রম থেকেই বিরত রয়েছেন তিনি। নিষেধাজ্ঞা খারিজ চেয়ে গত ৮ নভেম্বর জি এম কাদেরের করা আবেদনের ওপর শুনানি হয় ১০ নভেম্বর। গতকাল আদেশের জন্য দিন ধার্য ছিল ।

জি এম কাদেরের আবেদন আদালত খারিজ করে দেওয়ার পর তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট শেখ সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আমরা যে আবেদন করেছি, মাগরিবের পর দেওয়া আদেশে আদালত সেটি নামঞ্জুর করেছেন । একই সঙ্গে মূল নিষেধাজ্ঞা এবং আরজি খারিজের ওপর আগামী ৩০ নভেম্বর শুনানির দিন ধার্য করেছে আদালত।

পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে অ্যাডভোকেট শেখ সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘আগামীকাল (আজ বৃহস্পতিবার) আদালতের আদেশের বিষয়টি সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গভাবে জানার পর আলোচনা করে আমরা করণীয় নির্ধারণ করব।’ আদেশের সময় আদালতে উপস্থিত থাকা জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভুঁইয়া বলেন, ‘মসিউর রহমান রাঙ্গাও (জাপা থেকে বহিষ্কৃত) জি এম কাদেরের বিরুদ্ধে একই ধরনের পৃথক মামলা করেছেন একই আদালতে। যেহেতু জিয়াউল হক মৃধার ও রাঙ্গার করা পৃথক দুটি মামলার ধরন একই, সে কারণে উভয় মামলার ওপর ৩০ নভেম্বর শুনানি হবে। ঢাকার প্রথম যুগ্ম জেলা জজ আদালতের চূড়ান্ত আদেশ পাওয়ার পর আমরা জজ আদালতে যাব। জজ আদালতেও ন্যায়বিচার না পেলে তখন আমরা উচ্চ আদালতে যাব।’

এক প্রশ্নের জবাবে রেজাউল ইসলাম বলেন, ‘পার্টি চেয়ারম্যানের সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে । যাতে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালে গৃহীত দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী চেয়ারম্যান হিসেবে জি এম কাদের দলীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারবেন না। কিন্তু পার্টির ওপর, কিংবা পার্টির কমিটির ওপর তো কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। দলের প্রেসিডিয়ামসহ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি দলীয় সিদ্ধান্ত নিয়ে দল পরিচালনা করবে।’

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে জি এম কাদের ও দলের অবস্থান সম্পর্কে জাপা মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু গতকাল বলেন, ‘অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আবেদন খারিজের বিরুদ্ধে আমরা উচ্চ আদালতে যেতে পারি নিষেধাজ্ঞা থাকায় জি এম কাদের সাহেব পার্টির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারবেন না, কিন্তু রাজনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবেন। কারণ, রাজনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারা সাংবিধানিক অধিকার। সে অনুযায়ী, তিনি পার্টি পরিচালনা করবেন, দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নেবেন, নিয়মিত বক্তব্য-বিবৃতিও দেবেন ।”

আরো পড়ুন : আমাদের পরবর্তী পরিকল্পনা ক্যাশলেস সোসাইটি গড়ে তোলা

Share The News

Leave a Reply

Your email address will not be published.