রাজ্য পাওয়ার গল্পে নিজেও কাঁদলেন অতিথিদেও কাঁদালেন রাজ-পরী

নারী প্রচ্ছদ বিনোদন সিনেমা

ঢাকাই সিনেমার লেডি সুপারস্টার পরীমণির জন্মদিন মানেই জমকালো আয়োজন। এবারের জন্মদিন ছিল পরীমণির কাছে আরও বিশেষ। কারণ, মা হিসেবে এবারই প্রথম জন্মদিন উদযাপন করেছেন পরীমণি। তাই গতকাল মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর একটি কনভেনশন সেন্টার সাজিয়ে তুললেন শুভ্র-সাদা শান্তির প্রতীকে। ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে পুত্র রাজ্য ও স্বামী রাজকে নিয়ে হাজির হন পরীমণি।

জন্মদিনের রাতে দর্শকের জন্য যে বিশেষ চমক অপেক্ষা করছিল, তা কেউ ঠাওর করতে পারেনি। এ সময় পরীমণিকে নিয়ে নির্মিত একটি ডকুফিল্ম দেখানো হয়। এটাকে ডকুফিল্ম না বলে লাভ ফিল্মও বলা যেতে পারে। এই ফিল্মে পরীমণি নিজের বয়ানে তুলে ধরেন রাজের সঙ্গে তার প্রেমের গল্প। এ সময় লাজুক কণ্ঠে পরীমণি বলে চলেন রাজের মায়ায় পড়ে রাজ্য পেয়ে যাওয়ার গল্প।

পরীমণি বলেন, ‘আমার ওস্তাদ গিয়াস উদ্দিন সেলিম আমাকে গুণিন উপহার দেন, আর সেখানেই আমি পেয়ে যাই রাজকে।’

সন্তানের জন্ম নিয়ে পরী বলেন, ‘এক দিন সকালে আমি অনুভব করলাম আমার জীবনে আরও একজন আসছে। ঘুমন্ত রাজকে বললাম, রাজ আরেকজন আসছে। আমি টের পাচ্ছি। রাজ ঘুমের মধ্যে বলল, আসুক এই যে আমার বালিশের পাশে ঘুমাবে।’

রাজ, রাজ্য আর নানা-এই তিন খুঁটির গল্প শুনে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন আমন্ত্রিত অতিথিরা। নিজেদের পরস্পরকে জড়িয়ে ধরে সেই আবেগঘন মুহূর্তকে আরও আবেগায়িত করে তুলেন পরী-রাজ। রাজ পরীকে জড়িয়ে ধরে চুমু খান। আবেগ ধরে না রাখতে পেরে কেঁদে ফেলেন পরীমণি ও শরিফুল রাজ। তাদের ভালোবাসা সিক্ত কান্নায় স্নাত হয় উপস্থিত অতিথিরাও।

আরো পড়ুন : উত্তরা এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রীরাদের রক্ষা করল আকবর আলী

Share The News

Leave a Reply

Your email address will not be published.