দিনাজপুর গোর-এ-শহীদ বড় ময়দানে অনুষ্ঠিত হলো উপমহাদেশের অন্যতম বৃহৎ ঈদ জামাত

জাতীয় ধর্ম প্রচ্ছদ হ্যালোআড্ডা

শাহ্ আলম শাহী, দিনাজপুর থেকেঃ এশিয়া উপমহাদেশের অন্যতম বৃহৎ ঈদ-উল-ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হলো দিনাজপুরে। গোর-এ-শহীদ বড় ময়দানে এ জামাতে দূর-দূরান্ত থেকে অংশ নেয় প্রায় ৬ লাখ মুসল্লি। ধনী-গরিব,উঁচু-নিচু সব ভেদাভেদ ভুলে দিনাজপুরে এ ঈদের জামাত পরিনত হয় মুসল্লিদের মিলন মেলায়। দেশ-জাতির কল্যাণ এবং মুসলিম উম্ম্হর ঐক্য ও শান্তি কামনা করে এ ঈদের নামাজে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

সকাল থেকে মুসল্লিদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে দিনাজপুর গোর-এ-শহীদ বড় ময়দানে এশিয়া উপমহাদেশের অন্যতম বৃহৎ ঈদ-উল-াফতরের প্রধান জামাত। প্রায় ২২ একর জায়গার মধ্যে ১০ একর জায়গায় এ ঈদের জামাতে দলে দলে সমাগম ঘটে প্রায় ৬ লাখ মুসল্লির। এ ঈদের জামাত পরিনত হয় মুসল্লিদের মিলন মেলায় । সকাল সাড়ে ৯টায় অনুষ্ঠিত হয় এ জামাত। নামাজে অংশ নেয় বিচারপতি এনায়েতুর রহিম, জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম,জেলা প্রশাসক,পুলিশ সুপারসহ প্রায় সাড়ে ৬ লক্ষাধিক মুসল্লি। রাজধানী ঢাকা,চট্রগ্রাম,সাতক্ষিরা,টাঙ্গাইল,বগুড়া,রংপুর,নীলফামারী,জয়পুরহাটসহ আশপাশের অনেক জেলার মুসল্লি অংশ নেয় এ জামাতে। করোনায় দু’বছর বিততির পর আবারো এশিয়া উপমহাদেশের অন্যতম বৃহৎ এ জামাতে নামাজ আদায় করতে পেতে আনন্দে আপ্লুত হয়ে মুসল্লিরা।

টাংগাই জেলা থেকে এ ঈদগাহ মাঠে নামাজ আদায় করতে আসা শমসের আলী জানালেন,হজ্বে যাওয়ার মাতো তার সামর্থ নেই। তাই,আল্লাহ’র সন্তষ্টি লাভের আশায় তিনি দিনাজপুরে সর্কবৃহৎ ঈদের জামাতে নামাজ আদায় করতে পেরে খুশি। আল্লাহতালা তাঁকে বাঁচিয়ে রাখলে এবং তৌফিত দান করলে আগামীতেও আসবেন।
ঢাকার বরকত,চট্রগ্রামের মিজানুর রহমানও জানালেন একই কথা।

এ ঈদের জামাতের নামাজ শেষে মুসল্লিম উম্মার শান্তি কামনা করে মোনাজাত করান ইমামতি আলহাজ মাওলানা শামসুল হক কাসেমি।

নামাজ আদায় করতে আসা দিনাজপুর পুলিশ সুপার মোহাম্ম্দ আনোয়র হোসেন জানালেন, ঈদের জামাত সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য প্রবেশদ্বারের ১৯ টি গেট,৫০টি সিসিটিভি ক্যামেরা,তিনস্তরের সর্বোচ্চ নিরাপত্তাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

দৃষ্টি নন্দন এই ঈদগাহ মিনার এ রয়েছে ৫২টি গম্বুজ। প্রধান গম্বুজের সামনে রয়েছে মেহরাব,৪৭ ফুট উচ্চতা ইমাম দাঁড়ানোর স্থান। এছাড়াও ৫১৬ ফুট দৈর্ঘেও ৩২টি আর্চ নিমার্ণ করা হয়েছে। প্রতিটি গম্বুজ ও মিনারে রয়েছে বৈদ্যুতিক বাতি।

উপমহাদেশের অন্যতম বৃহৎ ঈদের এই জামাত সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হওয়ায় সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন এই ঈদগাহ মাঠ তৈরীর উদ্যোক্তা জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি।

তিনি বলেন,আল্লাহ পাকের অশেষ রহমতে আজ আমরা এই বিশাল ঈদগাহ মাছে নামাজ আদায় করতে সক্ষম হলাম। আগামী সুযোগ পেলে এই ঈদগাহ মাছকে আরো দৃষ্টি নন্দন ভাবে সুসজ্জিত করবো। মুসল্লির সমাগম যাতে আরো বেশি হয়,সে ব্যবস্থাও করা হবে।

শাহ্ আলম শাহী, দিনাজপুর থেকে।
আরো পড়ুন : ‘ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে এল খুশীর ঈদ…

Share The News

Leave a Reply

Your email address will not be published.