02:42am  Wednesday, 20 Oct 2021 || 
   
শিরোনাম
 »  আজ ১৬ অক্টোবর; আজকের দিনে জন্ম-মৃত্যুসহ যত ঘটনা      »  পিআইবি ও ইউএনডিপি’র ফেলোশিপ পেল ৮ সাংবাদিক     »  দেশের বিভিন্ন স্থানে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ায়, কঠোর অবস্থানে প্রধানমন্ত্রী     »  ফখরুলের বক্তব্যে ওবায়দুল কাদেরের জবাব উনি কে? সরকারকে সময় নির্ধারণ করে দেওয়ার      »  কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম     »  কুমিল্লার ঘটনা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: তথ্যমন্ত্রী     »  সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় জড়িতদের উদ্দেশে কঠোর হুঁশিয়ারি : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা     »  স্কুল-কলেজ শিক্ষার্থীদের চলতি সপ্তাহেই টিকাদান শুরু     »  ৪৩তম বিসিএস পরীক্ষার্থীদের জন্য ২৯ অক্টোবরে জরুরি নির্দেশনা     »  কোরআন অবমাননায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না করার আহ্বান ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর    



দেশের বিভিন্ন স্থানে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ায়, কঠোর অবস্থানে প্রধানমন্ত্রী



কুমিল্লায় পবিত্র কোরান অবমাননার ঘটনায় দেশের বিভিন্ন স্থানে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় কমপক্ষে ১৭টি মন্দির-পূজামণ্ডপে হামলা-ভাঙচুরের খবর পাওয়া গেছে। চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে জনতা-পুলিশ সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। উপজেলায় অনির্দিষ্টকালের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন। আরো কয়েকটি জেলায় সংঘর্ষ, ধাওয়া পালটা ধাওয়ায় সাংবাদিক-পুলিশসহ দেড়শতাধিক আহত হয়েছে। গ্রেপ্তার হয়েছে অর্ধশতাধিক।

গত বুধবার কুমিল্লা শহরের একটি পূজামণ্ডপ থেকে পবিত্র কোরান শরীফ উদ্ধারের ঘটনায় চারটি মামলা হয়েছে। ঘটনা খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। যে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কুমিল্লা, নরসিংদী, মুন্সিগঞ্জসহ দেশের ২২ জেলায় বিজিবি মোতায়েন করা রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিজিবির পরিচালক (অপারেশন) লে. কর্নেল ফয়জুর রহমান।

এদিকে দেশে বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান দুর্গোৎসব চলাকালে এমন অপ্রীতিকর ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কঠোর অবস্থান গ্রহণ করেছেন বলে জানা গেছে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘কুমিল্লার ঘটনায় কাউকে কোন ছাড় দেওয়া হবে না। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। তারা যে ধর্মেরই হোক না কেনো, বিচারের আওতায় আনা হবে।’ গতকাল বৃহস্পতিবার গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরের কেন্দ্রীয় পূজামণ্ডপে ভক্তদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন ।

একই দিন রাজধানীর গোপীবাগে রামকৃষ্ণ মিশন পূজামন্ডপ পরিদর্শনকালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়ে শান্তি-শৃঙ্খলা বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের প্রতি নির্দেশনা দিয়েছেন। একই সঙ্গে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সতর্ক অবস্থানে থাকতে বলেছেন। জানা গেছে, চলমান পরিস্থিতিতে সারাদেশে দলীয় নেতা-কর্মীদের সজাগ থাকার নির্দেশনা দিয়েছে আওয়ামী লীগ। বিশেষ করে সব পূজামন্ডপে সতর্ক পাহারায় থাকতে বলা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন, কুমিল্লার ঘটনায় যারা জড়িত তাদেরকে শিগগিরই ধরা হবে। গতকাল সচিবালয়ে পুলিশ, বিজিবি, র্যাবসহ সব গোয়েন্দা বাহিনীর প্রধান ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

চাঁদপুর প্রতিনিধি ও হাজীগঞ্জ সংবাদদাতা জানান, উপজেলায় একাধিক মন্দিরে হামলার ঘটনায় বিক্ষুব্ধ জনতা ও পুলিশের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে তিন যুবক ও এক কিশোর নিহত হয়েছে। এর মধ্যে ৩ জন বুধবার রাতে ও একজন বৃহস্পতিবার সকালে চিকিত্সাধীন অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে মারা গেছেন। বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার লক্ষ্মীনারায়ণ জিউর আখড়া (ত্রিনয়নী), দি বিবেকানন্দ বিদ্যাপীঠ মন্দির, পৌর মহাশ্মশান, জমিদার বাড়ীসহ কয়েকটি পূজামণ্ডপের সামনে এসব সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন: টাইলস মিস্ত্রী চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সুন্দরপুর বাগডাঙা এলাকার সামছুর ছেলে বাবলু (৩৫), হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার ১১নং ওয়ার্ড রান্ধুনী মুড়ার শুকু কমিশনার বাড়ির তাজুল ইসলামের ছেলে আল আমিন (১৮), একই ওয়ার্ডের সেকান্দর বেপারী বাড়ির মো. ফজলুর ছেলে হূদয় (১৪) ও রান্ধুনীমুড়ার বাচ্চুর ছেলে শামীম (১৯)। মৃত্যুর বিষয়টি হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সের ইমার্জেন্সি মেডিকেল অফিসার সুলতান মাহমুদ নিশ্চিত করেছেন।

হাজীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, এশার নামাজের পর আনুমানিক সাড়ে ৮টার দিকে বিক্ষুব্ধ জনতা মিছিল নিয়ে লক্ষ্মী নারায়ণ জিউর আখড়া ও পাশের আশ্রমে হামলা করে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি ও টিআর সেল নিক্ষেপ করে। এ সময় পুলিশ, সাংবাদিক ও পথচারীসহ ৩০/৩৫জন আহত হন। গুরুতর আহত বাবলু, আল-আমিন, হূদয় ও শামীমকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাদের মৃত্যু হয়।

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মিলন মাহমুদ বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। প্রতিটি মন্দিরে প্রচুর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এদিকে এ ঘটনায় অনির্দিষ্টকালের জন্য রাতেই হাজীগঞ্জ উপজেলায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন। চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, এ ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রধান করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কুমিল্লা প্রতিনিধি জানান, নগরীর নানুয়া দীঘির উত্তর পাড়ের একটি পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরান অবমাননার ঘটনায় তাত্ক্ষণিকভাবে ফেসবুকে ধারা বিবরণী (লাইভ) প্রচারকারী মো. ফয়েজ এবং এ ঘটনার পর নগরীর বিভিন্ন স্থানে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত ৪১ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ফয়েজকে একমাত্র আসামি করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি এবং হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় আটকদেরসহ অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে আরো তিনটি মামলা হয়েছে। এছাড়া ৯৯৯-এ পুলিশকে ফোন দেওয়া ফয়েজের পেছনে থাকা এ ঘটনার নেপথ্য নায়কদের খুঁজছে পুলিশ। এ ঘটনায় কুমিল্লা জেলা প্রশাসন ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। বিকালে জেলাপ্রশাসকের কার্যালয়ে এক প্রেসব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান ও পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ।

এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে কুমিল্লায় আসেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগ) ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপির নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল এবং পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন। তারা দফায় দফায় জেলা ও পুলিশ প্রশাসনসহ পূজা উদযাপন কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে টিমের প্রধান আবু সাঈদ বলেন, এ ঘটনায় জড়িতদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। এদিকে নগরীতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর টহল অব্যাহত থাকলেও জনমনে আতঙ্ক কাটেনি।

পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, প্রতিটি ঘটনার জন্য মামলা হবে এবং অপরাধী যেই হোক কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। কুমিল্লার পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ জানান, নগরীর চারটি পূজামণ্ডপে হামলা এবং ৬টি তোরণ ভাঙচুর করা হয়েছে। শুক্রবার জুমা ও প্রতিমা বিসর্জনকে সামনে রেখে কোনো ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সেজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

লামা (বান্দরবান) সংবাদদাতা জানান, উপজেলায় মানবন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশেকে কেন্দ্র করে ত্রিমুখী সংঘর্ষে লামা থানার অফিসার ইনচার্জসহ উভয়পক্ষের শতাধিক লোক আহত হয়েছে। এ সময় উত্তেজিত জনতা লামা কেন্দ্রীয় হরিমন্দিরের সামনে রাস্তায় নির্মিত দূর্গাপূজার প্যাণ্ডেল, দোকান ও আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ অন্তত ২০ রাউন্ড টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। ঘটনাস্থলে পুলিশের পাশাপাশি সেনাবাহিনী, বিজিবি ও আনসার মোতায়েন করা হয়েছে।

গাজীপুর প্রতিনিধি জানান, নগরীর কাশিমপুর এলাকায় তিনটি মন্দিরে হামলা চালিয়ে প্রতিমা ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার সকাল সাতটা থেকে সাড়ে সাতটার মধ্যে এসব ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পূজা কমিটির নেতারা জানান, কাশিমপুর বাজারের শ্রী শ্রী রাধা গোবিন্দ মন্দির, পালপাড়া দুর্গা মন্দির ও সুবলের বাড়ির পূজামন্ডপে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করা হয়। হামলায় প্রায় তিন শতাধিক লোক অংশ নিয়েছে। এসময় তারা ২০ হামলাকারীকে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন। ভাঙচুরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম।

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) সংবাদদাতা জানান, বুধবার রাত ১০টার দিকে মিছিল করতে করতে এক দল লোক উপজেলার মনাকষা বাজারের জাগরনী চক্র মন্দিরে অতির্কিতভাবে হামলা চালিয়ে গেট ও লাইটগুলো ভেঙে ফেলে। পরে স্থানীয়দের প্রতিরোধে তারা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় কিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ ১১জনকে আটক করেছে।

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) সংবাদদাতা জানান, লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জের ইছাপুর ইউনিয়নে ৫টি মন্দিরে হামলা হয়েছে। এসময় ১৬ প্রতিমা ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে প্রশাসনের পাশাপাশি স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা. আনোয়ার খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। রামগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে, তদন্ত করে অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হবে।

এদিকে একই সময় রামগতি পৌরসভার জমিদারহাট বাজার সংলগ্ন শ্রী শ্রী রামঠাকুরাঙ্গন মন্দির ও পূজামণ্ডপে দুর্বৃত্তরা হামলা চালায়। এ সময় পুলিশ লাঠিচার্জ, শটগানের ৫৪ রাউন্ড গুলি ও তিন রাউন্ড টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। এ ঘটনায় পুলিশের চার সদস্যসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। পুলিশ বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা ২৫০ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেছে বলে জানিয়েছেন রামগতি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সোলাইমান।

কুড়িগ্রামের উলিপুরে প্রায় ৭টি মন্দিরে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ চালিয়েছে বিক্ষুব্ধ জনতা। কুমিল্লার একটি পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ অবমাননার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বুধবার রাতে উপজেলার গুনাইগাছ, থেতরাই ও হাতিয়া ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। মন্দিরে হামলা ভাঙচুরের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ১৮ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ও বাগমারা সংবাদদাতা জানান, কুমিল্লার ঘটনার জের ধরে কথা কাটাকাটির ঘটনায় গতকাল উপজেলা সদরের ভবানীগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষুব্ধ জনতার সংঘর্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারুক সুফিয়ান বলেন, পবিত্র কোরআন শরীফ নিয়ে হিন্দু এক যুবকের কটূক্তির ঘটনায় এই বিশৃঙ্খল ঘটনা ঘটে। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

দাউদকান্দি (কুমিল্লা) সংবাদদাতা জানান, বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার মালিগাও ইউনিয়নের দক্ষিণ নগর গ্রামের একটি পূজামণ্ডপে ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে।

কুমিল্লার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অপপ্রচার করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার অভিযোগে গোলাম মাওলা নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। গতকাল রাতে কুমিল্লা সদর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গতকাল রাতে র্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার সিনিয়র সহকারী পরিচালক সিনিয়র এএসপি আ ন ম ইমরান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গোলাম মাওলা ‘জিএম সন্নি এইচডি মিডিয়া’ নামে ফেসবুক আইডিতে উসকানিমূলক পোস্ট ও ইউটিউবে বিভিন্ন ভিডিও তৈরি করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়।

ফখরুলের বক্তব্যে ওবায়দুল কাদেরের জবাবউনি কে? সরকারকে সময় নির্ধারণ করে দেওয়ার


এই নিউজ মোট   694    বার পড়া হয়েছে


জাতীয়



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.