ম্যাচ সেরার পুরস্কার পেয়ে মেহেদি হাসান মিরাজ যা বললেন

খেলাধুলা বিনোদন সফলতার গল্প

ভারতের বিপক্ষে শেরেবাংলায় পরপর দুই খেলায় ম্যাচ জেতানো ব্যাটিং করলেন মেহেদি হাসান মিরাজ। পেলেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার।

বুধবার ম্যাচে বাংলাদেশ আগে ব্যাট করে ধুঁকছিল। ৬৯ রানের মধ্যে অধিনায়ক লিটন দাস, এনামুল হক বিজয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম আর আফিফ হোসেন ধ্রুব আউট হয়ে যান।

এর কঠিন বিপদে শক্ত হাতে হাল ধরেন মিরাজ। রিয়াদকে নিয়ে ১৪৮ রানের রেকর্ড পার্টনারশিপ গড়েন। তাতে বিপর্যয় কাটিয়ে বাংলাদেশ পৌঁছে যায় ২৭০’র ঘরে।

বুধবার শেরে বাংলার কনফারেন্স হলে ম্যাচ শেষে অনেক খোলা মেলা কথাই বলেছেন মিরাজ।

পরপর দুদিন এমন নায়কোচিত পারফরমেন্সের বিষয়ে মিরাজ বলেন, ‘দুদিনই কঠিন ছিল। কোনোটাই কম না। তবে পরিস্থিতি ছিল ভিন্ন। শেষ উইকেটে ৫১ কম না। আর আজ ৬৯ রানে ৬ উইকেট পতনের পরের কাজটাও কম কঠিন ছিল না। আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে ভালো ও সুখস্মৃতি এ দুটি ইনিংস।’

বুধবারের ম্যাচের সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমার আর রিয়াদ ভাইয়ের মধ্যে আসল কথা হয়েছে বল টু বল খেলার জন্য। অবস্থা বুঝে খেলার জন্য। কখনো রিয়াদ ভাই বলেছেন। আবার কোনো সময় আমিও বলেছি। তিনি সিনিয়র হলেও আমার কথা শুনেছেন। সেই ছেট ছোট কথোপকোথনগুলো অনেক কাজে দিয়েছে।’

তবে নাসুম আহমেদকে ক্রেডিট দিতেও ভোলেননি মিরাজ। নাসুম শেষ দিকে ১১ বলে ২ বাউন্ডারি আর এক ছক্কায় ঝড়ের গতিতে ১৮ রান তুলে দিয়েছেন। মিরাজ বলেন,‌ ‌‘সেটা অনেক কাজে দিয়েছে। নাসুম ভাইকে ক্রেডিট দিতে চাই। তার ছোট কনট্রিবিউশনটা আমাদের অনেক কাজে দিয়েছে।’

শেষ ওভারে ১৫ রান দরকার থাকা অবস্থায়ও কি শতরানের চিন্তা মাথায় আসেনি? এই প্রশ্নে মিরাজ বলেন, ‘নাহ! সেঞ্চুরি করবো ভাবিনি।’

তার ভাষ্য, ‘পরপর দুদিন দল জেতানো ব্যাটিং করতে পেরে অনেক ভালো লাগছে। সৃষ্টিকর্তাকে অনেক ধন্যবাদ। তিনি আমাকে সুযোগ করে দিয়েছেন ভালো খেলার। দলের সাফল্যে কার্যকর ভূমিকা রাখার। সেটা আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া। ভারত অনেক বড় দল। এমন বড় দলের সঙ্গে পারফর্ম করাটা অনেক তৃপ্তির।’

আরো পড়ুন : নয়াপল্টনে সড়ক পরিষ্কার করল সিটি করপোরেশন

Share The News

Leave a Reply

Your email address will not be published.